• সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৩:০১ অপরাহ্ন |

রাজারহাটে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইউপি সদস্যের অনাস্থা

kurigramরফিকুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলাধীন ৬নং উমর মজিদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাব মন্ডলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ এনে ৮ ইউপি সদস্য তার বিরুদ্ধে অনাস্থা এনে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে সোমবার লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। বর্তমানে ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ফলে ওই ইউনিয়ন পরিষদের সকল উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড মুখ থুবড়ে পড়েছে। অভিযোগে প্রকাশ, উমর মজিদ ইউপি’র চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাব মন্ডল ভিজিডি প্রকল্পের সভা না করায় ইউপি সদস্যরা বিষয়টি চেয়ারম্যানের নিকট জানতে চাইলে তিনি এর কোন সদুত্তর দেননি। যাহা ডিসেম্বর ২০১৪ এর ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে জমা দেয়ার শেষ সময় হলেও অদ্যাবধি ভিজিডি’র ওই তালিকা প্রণয়ন করা হয়নি বলে ৮ ইউপি সদস্যরা জানিয়েছেন। পাশাপাশি ২০১৪-১৫ অর্থ বছরের বরাদ্দকৃত টিআর ও কাবিখা প্রকল্পের বরাদ্দ, ২০১৪-১৫ অর্থ বছরের এলজিএসপি’র বরাদ্দকৃত ১৫ লাখ ৯৮ হাজার টাকার প্রকল্প চেয়ারম্যান তার ইচ্ছেমত গ্রহণ পূর্বক এসব অর্থের প্রকল্প বাস্তবায়নের বিষয়ে তিনি কোন সভা আহ্বান করেননি। বিগত ২০১৩-১৪ অর্থ বছরের এডিপি ১% ভূমি হস্তান্তরের টাকাও দূর্নীতির মাধ্যমে আত্মসাত করেছেন। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় কর্তৃক ইউনিয়ন পরিষদে দেয়া সকল চিঠিপত্র গোপন রাখা পরিষদের আয়ের ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স, জন্ম নিবন্ধন এর অর্থ আত্মসাত করা। মাঝে-মধ্যে সভা ডেকে সভা ছাড়া ফাঁকা রেজুলেশন বহিতে ইউপি সদস্য ও সদস্যাগণকে স্বাক্ষর দেয়ার চাপ। কেউ এর প্রতিবাদ করলে তাকে চেয়ারম্যান অশ্লীল ভাষায় গালি-গালাজ ও হেনাস্তা করেন। এদিকে প্রতি বছর ইউনিয়ন পরিষদের লাখ লাখ টাকার প্রকল্প হাতে নিয়ে নামমাত্র প্রকল্প দেখিয়ে গত সাড়ে ৩ বছরে তিনি কয়েক লাখ টাকা আত্মসাত করেছেন এবং প্রকল্পের নামে কিছু জিনিসপত্র ক্রয় করে তিনি তার পছন্দের লোক জনের মধ্যে বাড়িতে বিতরণ করার কথা জানালেন অভিযোগকারী ইউপি সদস্য ও সদস্যাগণ। অপরদিকে প্যানেল চেয়ারম্যান তিনি একক ক্ষমতা বলে পরিষদের মিটিং (সভা) ছাড়াই প্রণয়ন করেছেন এবং ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক ইউপি সদস্য/ সদস্যাদের সম্মানী ভাতা পর্যন্ত তিনি দেননি। নামমাত্র পরিষদে মাসিক সভার আহ্বান করে উপস্থিত ইউপি সদস্য ও সদস্যাদের কাছ থেকে স্বাক্ষর করিয়ে কোন আলোচনা ছাড়াই টালবাহনা পূর্বক সভা সমাপ্ত দেখিয়ে পরে তিনি নিজের ইচ্ছামত রেজুলেশন তৈরি করে উপজেলা পরিষদে দাখিল করে আসছেন। চেয়ারম্যানের এসব অনিয়ম-দূর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতায় অতিষ্ট হয়ে অবশেষে তার বিরুদ্ধে ১২ সদস্যের ৬ ইউপি সদস্য ও ২ জন ইউপি সদস্যাসহ মোট ৮ সদস্য অনাস্থা প্রস্তাব এনে তার ওইসব দূর্নীতির তদন্ত পূর্বক শাস্তির দাবী জানিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়-ঢাকা, কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক, রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এ বিষয়ে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক এ বি এম আজাদ তাঁর ০১৭১৩২০২৩৮৪ নম্বর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে ফোনে পাওয়া না যাওয়ায় তাঁর বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুল মোতালেব সরকারের নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অভিযোগটি এখনও দেখা হয়নি। হাতে পেলে তদন্ত পূর্বক অভিযোগটি প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। উমর মজিদ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাব মন্ডলের সঙ্গে ০১৭১৪৬০৫০৪৭ নম্বরের তার মূঠোফোনে এ বিষয়ে একাধিকবার তার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

রাজারহাটে হরতালে যানবাহনে হামলা
কুড়িগ্রামের রাজারহাটে হরতাল সমর্থনকারীরা রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলে পিকেটিং করে যানবাহনে হামলা চালিয়েছে। রাজারহাট-তিস্তা সড়কে রোববার রাত পৌনে ১১টার দিকে হাতকাটা বাজার নামক এলাকায় ৮-১০ জনের জামাত-শিবিরের নেতা-কর্মীরা রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলে যান চলাচল বন্ধ করে যানবাহনে আকস্মিক হামলা চালায়। খবর পেয়ে রাজারহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে গাছের গুড়ি সরিয়ে নিলে আবার যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ বিষয়ে রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আব্দুর রশিদ বলেন, যে কোন ধরণের নাশকতা এড়াতে পুলিশকে সতর্ক অবস্থানে রাখা হয়েছে এবং নাশকতাকারীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। গতকাল এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলার কোথাও হরতালের সমর্থনে মিছিল ও পিকেটিং করতে দেখা যায়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ