• মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১২:৩৪ অপরাহ্ন |

কাত্তি মাসি জ্ব্যারত ধোকড়া গাদ্যিয়া আছিনু

Dinajpur Map-1ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: মন্নের জ্ব্যারত বাপু ক্যাহো মোক এখান গরম কাপড়া দেয় নাই; স্বামী ব্যাচি আছে, কিন্তুক বুড়া মানুষ ত্যাও চলিবার পারে না। কাত্তি মাসি জ্ব্যারত ধোকড়া (চট) গাদ্যিয়া আছিনু। এইবার বহুব্রীহি’র কম্বল পানু আরবার জ্ব্যারত মোক ধ্যোকড়া (চটের বস্তা) গাদ্যিবের নাগিবেন্যায় দিনাজপুরের সদর উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের রানীগঞ্জের লালো বালা রায় (৮১) কম্বল পেয়ে ঠিক এভাবেই তার  অভিব্যক্তি প্রকাশ করলেন।
বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থা বহুব্রীহি দিনাজপুরের সদর উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বরে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াই টায় আর্ন্তজাতিক সংস্থা হেল্পএইজ ইন্টারন্যাশনাল সহযোগীতায়  হতদরিদ্র প্রবীণদের মাঝে শীতবস্ত্র (কম্বল) বিতরণ করেন।
ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ হাফিজুর রহমান প্রবীণদের মাঝে কম্বল বিতরণকালে বলেন, যদিও তেমন শীত নাই, তারপরও এই কম¦ল বিতরণের জন্য হেল্পএইজ ইন্টারন্যাশনাল ও বহুব্রীহিকে আমি আমার ইউনিয়নের পক্ষ স¦াগত জানাই। কম্বল পেয়ে আপনারা কেউ বেটির (মেয়ে) বাসায় দিবেন না; তুলে রেখে দিবেন আগামী শীতের শুরু থেকে এই কম্বল ব্যবহার করবেন।
কম্বল পেয়ে এই হতদরিদ্র প্রবীণ আদিবাসী নারী ফুলমনি র্মূর্মূ (৭৬) বলেন, “কম্বল নামক্যাতে ইং এডি খুশি, ইং কয়্যামকানা ঈশ্বর-রে (কম্বল পেয়ে আমি অনেক খুশি; দোয়া করছি আপনারা যেন আরো বেশি সহয়তা করতে পারেন) এভাবেই তার অনুভূতি প্রকাশ করে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন গণমাধ্যম প্রতিনিধি, ইউনিয়নের ইউপি সদস্য, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, অধিকার সুরক্ষায় নির্বাচিত ৪ সাংস্কৃতিক দলের দলনেতা ও সাংস্কৃতিক দলের কমিটির সভাপতি-সম্পাদক ও সদস্যবৃন্দ ও আদিবাসি ‘মানঝিহারাম’ নরেশ র্মূর্মূ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ