• শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৬:৫৩ অপরাহ্ন |

ডোমারে ফিডিং কর্মসূচীর মেয়াদোত্তীর্ন বিস্কুট খেয়ে ৭ শিক্ষার্থী অসুস্থ

ebd475cef93c6046b400987b141eb9ffসিসি নিউজ: নীলফামারীর ডোমারের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ফিডিং কর্মসুচীতে বিতরনকৃত মেয়াদোর্ত্তীর্ন বিস্কুট খেয়ে ৭ শিশু অসুস্থ হয়ে পড়েছে। এ নিয়ে বিদ্যালয়ের অপরাপর শিক্ষার্থীদের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। অনেকে বিতরনকৃত বিস্কুট না খেয়ে তা ফেলে দেয়। জনরোষের ভয়ে অবস্থা বেগতিক দেখে প্রধান শিক্ষক মিটিং এর নাম করে বিদ্যালয় ছেড়ে পালিয়ে যায়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে এসে মেয়াদোর্ত্তীর্ন প্রায় ১৬’শ প্যাকেট বিস্কুট জব্দ করেছে। ঘটনা তদন্তে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে প্রধান করে তিন সদস্য’র একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে জেলার ডোমার উপজেলা শহরের প্রান কেন্দ্রে অবস্থিত শহীদ স্মৃতি আদর্শ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।
জানা যায়, জেলার ডোমার উপজেলা সদরের শহীদ স্মৃতি আদর্শ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরকারের ফিডিং কর্মসুচীতে বিতরনের জন্য গত ৩ দিন ধরে মেয়াদোত্তীর্ন বিস্কুট বিতরন করা হচ্ছে। বিতরনকৃত এ সব বিস্কুট খেয়ে প্রতিদিনই দু একজন শিক্ষার্থী অসুস্থ হবার ঘটনা ঘটছে। আজ বুধবার দুপুরে আবারো বিতরন করা হয় মেয়াদোর্ত্তীর্ন এ সব বিস্কুট। এ বিস্কুট খেয়ে অন্তত ৭ জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। অসুস্থ শিক্ষার্থীরা হলেন, ৩য় শ্রেনীর সিনহা, রনি, পঞ্চম শ্রেনীর হৃদয়, লিখন, স্নিগ্ধ ও রিমু সহ অজ্ঞাত আরো কয়েকজন। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফিউর রহমান ঘটনাস্থলে এসে মেয়াদোত্তীর্ন ১৬’শ প্যাকেট বিস্কুট জব্দ করে তদন্ত কমিটি গঠন করে দেন। কমিটি এক কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবেন। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম মেয়াদোত্তীর্ন বিস্কুট থাকার কথা স্বীকার করে জানান, গত ২ দিন আগে জানতে পেরে সরবরাহকারী সংস্থা আরডিআরএসকে জানিয়েছি কারন তারাই এ সব বিস্কুট সরবরাহ করেছে। তবে মেয়াদোত্তীর্ন বিস্কুট বিতরন করা হয়নি বলে তিনি দাবী করেন। এ ব্যাপারে ডোমার উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিউর রহমান মেয়াদোতর্œ বিস্কুটের বিষয়টি স্বীকার করে জানান, আগামী এক কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পওয়ার পর দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়া হবে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আসাদুজ্জামান চয়ন জানান, এই বিদ্যালয় হতে নিয়মিত বিস্কুট মিসিং হয়। দীর্ঘদিন ধরে কড়া পাহারা বসানোর কারনে তা করতে না পেরে বিস্কুট এর মেয়াদ শেষ হয়েছে। মেয়াদ শেষ এ সবই বিতরন করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি প্রকৃত দোষীদের বিচার দাবী করেন।
এ ব্যাপারে সরবরাহকারী সংস্থা আরডিআরএস এ জেলা সমঞ্চয়কারী আমিনুর রহমান জানান, আমরা পরিকল্পনা ও চাহিদা মোতাবেক বিস্কুট সরবরাহ করি। তবে কোন মেয়াদোত্তীর্ন বিস্কুট নয়। এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষকের কাছে লিখিত জবাব চাওয়া হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ