• মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০১:০৮ পূর্বাহ্ন |

ভালো ঋণগ্রহীতাদের প্রণোদনা দেয়ার নির্দেশ

Bankঢাকা: ব্যাংকিং খাতে উন্নত ঋণ সংস্কৃতি গড়ে তুলতে নিয়মিত ঋণ পরিশোধকারী গ্রাহকদের অর্থাৎ ভালো ঋণ গ্রহীতাদের জন্য ব্যাংকগুলোকে প্রণোদনা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ প্রণোদনার আলোকে যারা ভালো ঋণগ্রহীতা হবেন তাদের কাছ থেকে আদায়কৃত সুদের ১০ শতাংশ রিবেট (অব্যাহতি) দিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনটি সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীর কাছেও পাঠানো হয়েছে।

এক্ষেত্রে চলমান, তলবী ও মেয়াদী ঋণের যে গ্রাহকরা পরপর ৩ বছর ভালোভাবে ঋণ পরিশোধ করেছেন, যাদের কোনো ঋণ শ্রেণীকৃত করা হয়নি এবং তিন বছরের মধ্যে তাদের সংশ্লিষ্ট কোনো প্রতিষ্ঠানের ঋণ বিরূপমানে শ্রেণীকৃত হয়নি তাদের ভালো ঋণগ্রহীতা বলে সংজ্ঞায়িত করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

প্রজ্ঞাপনে ব্যাংকগুলোকে ভালো ঋণ গ্রহীতার হিসাবের বিপরীতে ওই বছরে আদায়কৃত সুদ বা মুনাফার কমপক্ষে ১০ শতাংশ রিবেট দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পরবর্তী বছরগুলোতে ওই গ্রাহকরা ভালো গ্রহীতা হিসেবে চিহ্নিত থাকলে এই সুবিধা অব্যাহত রাখতে বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। প্রয়োজনে এদের জন্য বর্ধিত ঋণ সুবিধাও দিতে পারবে ব্যাংকগুলো।

প্রজ্ঞাপনে তলবী ও মেয়াদী ঋণ গ্রহীতাদের ক্ষেত্রেও একইভাবে সুবিধা দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া বার্ষিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ভালো ঋণগ্রহীতাদের পুরস্কার দিয়ে সামাজিকভাবে মর্যাদা বৃদ্ধির মাধ্যমে উৎসাহিত করতে ব্যাংকগুলোকে পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

জানা গেছে, রাজনৈতিক সহিংসতায় ক্ষতি বিবেচনায় ৫০০ কোটি বা তার বেশি পরিমাণ ঋণ খেলাপিদের মাত্র ১ ও ২ শতাংশ ডাউনপেমেন্ট দিয়েই ১২ বছরের জন্য পুনর্গঠন করে খেলাপি ঋণ নিয়মিত করার সুযোগ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। গত বছরও নামমাত্র ডাউনপেমেন্ট দিয়ে খেলাপি ঋণ পুনঃতফসিল করে নিয়মিত করার সুযোগ দেয়া হয়। বারবার বড় অংকের খেলাপিদের ছাড় দেয়ায় নিয়মিত ঋণ পরিশোধ করা ভালো গ্রাহকরা প্রশ্ন তোলেন। এবার ভালো গ্রাহকদের ক্ষেত্রেও প্রণোদনা ঘোষণা করলো বাংলাদেশ ব্যাংক।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ