• রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ১২:৫৬ অপরাহ্ন |

ভালোবাসায় সিক্ত হলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল

Mashraafee-1427056362সিসি ডেস্ক: সফল বিশ্বকাপ অভিযান শেষে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনাল থেকে বিদায় নেয়া মাশরাফি বিন মুর্তজাদের বিমানবন্দরে বরণ করে নেন হাজারো ক্রিকেট ভক্ত। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় ঢাকায় পা রাখেন মাশরাফিরা। একাদশ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য ছিল কোয়ার্টার-ফাইনালে খেলা। আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ড ও ইংল্যান্ডকে হারিয়ে সেই লক্ষ্য ভালোভাবেই পূরণ করেন মাশরাফিরা। কোয়ার্টার-ফাইনালে শিরোপাধারী ভারতকে একটা সময় পর্যন্ত চাপে রাখলেও শেষ পর্যন্ত পেরে উঠেনি বাংলাদেশ। আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে ম্যাচ সেরা রোহিত শর্মা জীবন না পেলে ম্যাচের ফল অন্যরকমও হতে পারত। গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে বাংলাদেশের পক্ষে বাজি ধরার লোক কমই ছিলেন। ওয়ানডেতে এশিয়া কাপে আফগানিস্তানের কাছে হার, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে হংকংয়ের কাছে হারা দলটির মনোবল ছিল তলানিতে। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি পর্বে চারটি ম্যাচ হারে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ আক্ষরিক অর্থেই তাদের জন্য অগি্নপরীক্ষায় পরিণত হয়। সব চাপ পেছনে ফেলে ভালোভাবেই বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করে মাশরাফিরা। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে তিনশ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার-ফাইনালে খেলার পথে আরেকধাপ এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। পরের ম্যাচে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে গড়ে ইতিহাস। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ম্যাচ না জিতলেও কোয়ার্টার-ফাইনালে ভারতকে মোকাবেলার প্রস্তুতি সেরে রেখেছিল টাইগাররা। আম্পায়ার রুবেল হোসেনকে নো বল ডেকে বাংলাদেশের খেলা এলোমেলো করে দেয়ার আগ পর্যন্ত চালকের আসনে ছিলেন মাশরাফিরাই। সব বিপক্ষে যাওয়ার ম্যাচে হেরে সেমি-ফাইনালে যেতে না পারলেও ক্রিকেটভক্তদের হৃদয় জয় করেছেন মাশরাফিরা। তাই অনেকটা নিভৃতে বিশ্বকাপ খেলতে গেলেও ফেরার সময় তারা পেলেন বীরের সংবর্ধনা। বিমানবন্দরে উষ্ণ অভ্যর্থনায় সিক্ত হন টাইগাররা। বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের আনুষ্ঠানিক বরণ করতে বিমানবন্দরে আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কর্মকর্তারা। সেখানে ফুল দিয়ে তারা বরণ করেন মাশরাফি বাহিনীকে, করানো হয় মিষ্টিমুখ। টাইগারদের স্বাগত জানাতে এদিন বাংলাদেশ ক্রিকেট ফ্যানস ইউনিটি (বিসিএফইউ) ও বাংলাদেশ ক্রিকেট সাপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনসহ বিভিন্ন সংগঠনের হাজার হাজার সমর্থক অপেক্ষা করেন বিমানবন্দর সড়কে। রাস্তার দুই পাশে সারিবদ্ধভাবে ক্রিকেটারদের শুভেচ্ছা জানাতে ব্যানার, ফেস্টুন প্ল্যাকার্ড নিয়ে উপস্থিত হন তারা। সাথে চলে বাদ্য-বাজনা। সেই সাথে আম্পায়ারের কারসাজিতে ভারতের কাছে হেরে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয়ার প্রতিবাদে চলে নানা শ্লোগান। গত শনিবার মেলবোর্নের স্থানীয় সময় বিকেল ৪টায় অ্যাডিলেডগামী বিমানে চড়েন তারা। সেখান থেকে রাত সাড়ে ১০টায় এমিরেটসের একটি ফ্লাইটে দুবাইয়ের উদ্দেশে রওনা হন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। দুবাই হয়ে গতকাল রোববার রাত পৌণে আটটায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন মাশরাফি-মাহমুদুল্লাহ-মুশফিক-রুবেলরা। তবে সাকিব আল হাসান শনিবার রাতেই দেশে ফেরেন। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে কাঁধে চোট পাওয়া এনামুল হক বিজয় ফিরেছেন শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টায়। দলের সঙ্গে কোচিং স্টাফের অনেকেই ফিরেননি। মেলবোর্ন থেকে পরিবারের কাছে সিডনিতে গেছেন হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিক পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে গেছেন জিম্বাবুয়ে। ফিল্ডিং কোচ রিচার্ড হ্যালসল এবং ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারানে ছুটিতে যাচ্ছেন। এদিকে, বিমানবন্দরে নেমে টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেছেন, আমরা নিজেদের সেরাটা দিয়ে খেলেছি। যখন যে ম্যাচে জয় পাওয়া দরকার ছিল আমরা পেয়েছি। আপনারা জানেন যে ২০১৪ সালে আমাদের সময়টা ভালো যায়নি। এমনকি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচেও আমরা ম্যাচে হেরেছিলাম। তিনি আরো যোগ করেন, আমরা আল্লাহর রহমতে বিশ্বমঞ্চে ভালো খেলেছি। তবে, এ খেলাটা আমরা যদি ধরে রাখি তবে দলটি আরো বেশ এগিয়ে যাবে বলে আশা করি। টাইগার দলপতি আরও বলেন, এ আসরে মাহামুদুল্লাহ রিয়াদ অসাধারণ খেলেছে। মুশফিক ভালো খেলেছ। আর বোলিংয়ে তাসকিন অসাধারণ বোলিং করেছে। রুবেল হোসেন, সাবি্বর আহমেদও ভালো করেছে। ভারতের বিপক্ষে হেরে যাওয়া ম্যাচ প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন, আপনারা সবাই দেখেছেন সে ম্যাচে কি ঘটেছে। আমি নিজেও বিশ্বাস করি সে ম্যাচের ওই পয়েন্ট গুলো আমাদের পক্ষে থাকলে অবশ্যই আমরা জয় নিয়ে সেমিফাইনালে যেতাম। টাইগারদের ফিরে আসার খবর পেয়ে দুপুর থেকেই হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় হাজার-হাজার সমর্থকরা ভিড় করতে থাকেন প্রিয় দলকে সংবর্ধনা জানাতে। ব্যানার, প্ল্যাকার্ড হাতে ক্রিকেটারদের প্রতি শুভেচ্ছাবার্তা সম্বলিত ব্যানারে ছেয়ে যায় বিমানবন্দরের সামনের চত্বর। বিমানবন্দরের সামনে পুলিশবক্সের পাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে তারা বাংলাদেশ-বাংলাদেশ বলে স্লোগান দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ