• সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১২:০০ পূর্বাহ্ন |

নীলফামারীতে শিক্ষকের বেত্রাঘাতে দুই শিশু শিক্ষার্থী হাসপাতালে

Nilphamari-map20141206101432সিসি নিউজ: শ্রেণী কক্ষে বই পড়তে না পারায় দুই বিদ্যালয়ের দুই শিশু শিক্ষার্থী পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করেছে দুই বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা।
মঙ্গলবার পৃথক এই দুই ঘটনা ঘটেছে নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার দক্ষিন তিতপাড়া হাজীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দিলরুবা মহিকুল কিন্ডার গার্ডেন নামক দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। আহত ওই দুই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেছে স্থানীয়রা।
আহতরা হলেন উত্তর তিতপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেনীর ছাত্র নাহিদ হাসান (৬) ও দিলরুবা মহিকুল কিন্ডার গার্ডেনের প্লে ’গ্রুপের ছাত্রী মানষী রানী (৫)।
এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম ঘটনাস্থল পরির্দশন করে তদন্ত পূর্বক জরুরীভাবে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাা রবিউল ইসলামকে নির্দেশ দেন।
দক্ষিণ তিতপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাহিদ হাসানের বাবা মতিউর রহমান অভিযোগ করে বলেন, ক্লাশে পড়তে না পারায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা শেফালি বেগম বাঁশের কঞ্চি দিয়ে পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করে আমার শিশু ছেলেকে। লোকমুখে খবর পেয়ে যে দিকে আমার ছেলে নাহিদ হাসানের বাম হাতের ৩টি আঙ্গুল দিয়ে রক্ত ঝড়ছে আর তার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন। তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে নিয়ে আসলে তারা ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।
অপর দিকে দিলরুবা মহিকুল কিন্ডার গার্ডেনের প্লে-গ্রুপের ছাত্রী মানষী রানীর বাবা মানিক চন্দ্র রায় জানান, ক্লাশে পড়তে না পারায় প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক আবু রায়হান মানষীকে পিটিয়ে আহত করে। এতে মানষী জ্ঞান হারিয়ে ফেলে, তার শরীরেও আঘাতের চিহৃ রয়েছে। তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে নিয়ে আসলে তারা ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা চেয়ারম্যান তবিবুল ইসলাম ও নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম জানান, ঘটনা দুটি মর্মান্তিক। বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছি ।
ডিমলা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম বলেন,তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে। তবে ঘটনা দুটি সমাধানের জন্য ডিমলা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ আপোষের কথা জানায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ