• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন |

ওয়ানডে ক্রিকেটে আসছে নতুন নিয়ম

ODI_ICCখেলাধুলা ডেস্ক: চলতি বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানরা যেন রান-উৎসবে মেতে উঠেছেন। সেই সঙ্গে একের পর এক রেকর্ডও গড়ে চলেছেন তারা। বোলাররা যেন তাদের সামনে অসহায়। আর এ কারণেই ওয়ানডে ক্রিকেটে ব্যাট-বলের লড়াইটা আরও আকর্ষণীয় করার কথা ভাবছে আইসিসি। নিয়ম-কানুনে কিছু পরিবর্তন আনার ইঙ্গিত দিয়েছে এ নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান।

এর আগে বিশ্বকাপে কোনো ব্যাটসম্যানই ডাবল সেঞ্চুরি করতে পারেননি। কিন্তু এবারকার বিশ্বকাপে দুটো ডাবল সেঞ্চুরিও দেখেছেন ক্রিকেট প্রেমীরা। এমনকি দশম বিশ্বকাপ পর্যন্ত একটি মাত্র দল এক ম্যাচে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ ছিল ৪০০ রান। কিন্তু এবার একাধিক ম্যাচে চারশ’র বেশি রান উঠেছে। এমনকি সেমিফাইনাল পর্যন্ত ব্যাটসম্যানরা হাঁকিয়েছেন ৪৫০টি ছক্কা। আর তাই ব্যাটসম্যানদের লাগামটা টেনে ধরার চেষ্টা করবে বলে জানিয়েছেন আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন।

ওয়ানডে ক্রিকেটে বর্তমান নিয়মে প্রথম ১০ ওভারের বাধ্যতামূলক পাওয়ার প্লে-তে ৩০ গজি সীমানার বাইরে দু’জন ও শেষ পাওয়ার প্লে-তে তিনজন ফিল্ডার থাকেন। এতে ক্রিকেটটা হয়ে পড়েছে ব্যাটসম্যানদের খেলা, খুব বেশি ছক্কা হয় শেষ ১০ ওভারে। ফিল্ডার সাজানোর এই নিয়মটা পরিবর্তনের চিন্তা করছে আইসিসি। রিচার্ডসন জানান, আইসিসির ক্রিকেট কমিটি শেষ ১০ ওভারে আরেকজন ফিল্ডারকে বাইরে রাখার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করছে।

বিশেষ করে টি২০ ম্যাচের প্রভাব এসে পড়েছে ওয়ানডে ক্রিকেটে বলে মনে করছেন রিচার্ডসন। কারণ টি২০ ম্যাচের শুরু থেকেই ব্যাটসম্যানরা একটু আক্রমণাত্মক হয়ে খেলতে থাকে। তাই ওয়ানডে ক্রিকেট কিছু নিয়ম পরির্বতন করলে বোলাররাও ভালো করার সুযোগ পাবেন।

কারণ ব্যাটিং পাওয়ার প্লে-তে শুধু দুইজন ফিল্ডার বাইরে থাকায় অধিনায়ক ওই সময় আক্রমণাত্মক ফিল্ডিং সাজাতে পারেন না। অধিনায়কের মাথায় শুধু চিন্তা থাকে প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের কীভাবে রান করা থেকে বিরত রাখবেন। আর তাই আক্রমণাত্মক ফিল্ডিংয়ের (উইকেট তুলে নেয়ার) পরিবর্তে রান আটকানোর দিকেই অধিনায়ককে বেশি মনোযোগী হতে হয়।

এসব কারণে শেষ পাওয়ার প্লে-তে অতিরিক্ত আরেকজন ফিল্ডারকে বাইরে রাখার চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রিচার্ডসন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ