• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন |

মাকে পিটিয়ে হত্যা: বাবা ও ছেলে কারাগারে

Aditmari-Mader-Pic-2-e1427827140723 (1)সিসি ডেস্ক: বিয়ের পর থেকে পারিবারিক কলোহের জেরধরে পল্লী চিকিৎসক আব্দুল খালেক স্ত্রী জরিনা বেগমকে (৪৫) শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে আসছে। ১০/১৫ দিন পূর্বে স্বামী খালেক স্ত্রীর জন্য একটি শাড়ি ক্রয় করেন। শাড়িটি স্ত্রীর
পছন্দ না হওয়ায় ফেরত পাঠান। এ কারনে প্রায় ২ সপ্তাহ ধরে স্বামী আব্দুল খালেক ও তার ছেলে জসিম উদ্দিন রশি দিয়ে বেঁধে জরিনাকে মারপিট করত।

স্থানীয়রা ও পুলিশ জানান, (৩১ মার্চ) মঙ্গলবার সকালে ও দুপুরেও একই ভাকে স্ত্রী জরিনাকে বেধরক মারপিট করেন স্বামী পল্লী চিকিৎসক আব্দুল খালেক।
এতে জরিনা গুরুতর আহত হলে বাড়িতে আটক রেখে নিজেই চিকিৎসা দেন। তার অবস্থার অবনতি হতে জরিনার ভাইরা তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাদেরকে ধাওয়া করে খালেক ও তার ছেলে জসিম উদ্দিন। পরে জরিনা বেগম (৪৫) মারা যান সন্ধ্যায়।

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের গোবর্দ্ধন বাহাদুর পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত জরিনা বেগম মহিষখোচা ইউনিয়নের গোবর্দ্ধন বাহাদুর পাড়া গ্রামে মৃত সেফাতউল্লা মেয়ে।

খবর পেয়ে পুলিশ নিহত জরিনার লাশ উদ্ধার করে এবং এ ঘটনায় জড়িত জরিনার স্বামী আব্দুল খালেক(৫০) পল্লী চিকিৎসক ও তার ছেলে জসিম উদ্দিনকে(১৯)কে আটক করে আদিতমারী থানা পুলিশ। পরে রাত ১১ টার দিকে জরিনার ভাই আশরাফুল আলম বাদি হয়ে মামলা করেন থানায়।

আদিতমারী থানার পরিদর্শক(ওসি-তদন্ত) আব্দুস সোবহান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিতকরে জানান, স্ত্রী হত্যার দায়ে খালেক ও তার ছেলেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জরিনার মৃতদেহ বুধবার লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করা হবে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ