• রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন |

খানসামায় দপ্তরী নিয়োগে অনিয়মের প্রকাশিত সংবাদের ব্যাখ্যা

Screenshot-1_1_2004-12_39_57-AMসিসি নিউজ: দিনাজপুরের খানসামায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে সৃজিত দপ্তরী কাম প্রহরী পদে লোক নিয়োগে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির একটি সংবাদ জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল সিসি নিউজ-এ প্রকাশিত হয়েছে। সংবাদটিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ৪৬নং পূর্ব দুবলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগে মোটা অঙ্কের টাকা লেনদেন করে দাতা সদস্যের ছেলেকে নিয়োগ থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। আর এ অনিয়মের বিচার চেয়ে দাতা সদস্য মৃত ললিত চন্দ্র রায়ের ছেলে অশ্বিনী কুমার রায় সংশ্লিষ্ট আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এ্যাড. মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ বিষয়ে ৪৬নং পূর্ব দুবলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি আকবর আলী মোবাইল ফোনে সিসি নিউজকে জানান, সমাজে ও সরকারের কাছে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা কমিটির সকল সদস্যকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য একটি মহল সংবাদকর্মীকে বিভ্রান্তমূলক মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদটি প্রকাশ করেছে। তিনি জানান, প্রতিষ্ঠানটির দাতা সদস্যের পুত্র হিসেবে অশ্বিণী কুমারের দাবি অমূলক নয়। কিন্তু তিনি শুধু একাই দাতা সদস্য হিসেবে অভিযোগে উল্লেখ করায় নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে! কারণ ওই প্রতিষ্ঠানের মৃত দাতা সদস্যের ওয়ারিশসহ মোট দাতা সদস্যের বর্তমান সংখ্যা ৮। যার মধ্যে তিনজন সদস্যের পুত্র ওই প্রহরী পদের জন্য আবেদন করেছেন। এদের মধ্যে অশ্বিণী কুমারের পুত্র রয়েছেন বটে।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারী পূর্ব দুবলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ মোট ৬টি প্রতিষ্ঠানের দপ্তরী নিয়োগের প্যানেল তৈরির জন্য নিয়োগ পরীক্ষা খানসামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। যা ছয় সদস্যের একটি প্যানেল তৈরির কমিটি ওই পরীক্ষা গ্রহণ করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওই  কমিটির সভাপতি রয়েছেন। বর্তমানে দপ্তরী নিয়োগের চুড়ান্ত প্রার্থীর নামও প্রকাশ করা হয়নি- যা এখনও প্রক্রিয়াধীন।

এ প্রসঙ্গে পূর্ব দুবলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবার রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সিসি নিউজকে জানান, পরীক্ষা কমিটির মাধ্যমে দপ্তরী নিয়োগের প্যানেল তৈরির পরীক্ষা গ্রহন করা হয়েছে মাত্র। কিন্তু চুড়ান্ত প্রার্থী নির্বাচন করার এখতিয়ার ওই কমিটির নেই। তিনি এক প্রশ্নের জবাবে সিসি নিউজকে বলেন, যেখানে নিয়োগের বিষয়টি একেবারে ভিন্ন, সেখানে নিয়োগ বাণিজ্যের নামে লাখ লাখ টাকা লেনদেনের অভিযোগ ভিত্তিহীণ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ