• শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৯:০৩ অপরাহ্ন |

দিনাজপুরে ওসিসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা

Mamlaদিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের হাকিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি), পুলিশের উপপরিদর্শকসহ তিন জনের বিরুদ্ধে আদালতে চাঁদাবাজির মামলা হয়েছে।  জোবাইদুল ইসলাম নামে এক মাছ ব্যবসায়ী বৃহস্পতিবার দুপুরে দিনাজপুর ১ম শ্রেণির জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আমলি আদালতে মামলাটি দায়ের করেছেন। ওই মামলায় হাকিমপুর থানার ওসি মোখলেছুর রহমান, এসআই মতিউর রহমান ও পলাশ সরকারকে আসামি করা হয়েছে।
আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রেজাউল বারী মামলাটি গ্রহণ করে আগামী ৪ মে’র মধ্যে দিনাজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) কে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দিয়েছেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ৫ জানুয়ারি বিকেল ৩ টায় মোটরসাইকেলযোগে  ঘোড়াঘাট উপজেলার চোপাগাড়ী গ্রামের মৃত আফতাব উদ্দিন মণ্ডলের ছেলে ব্যবসায়ী জোবাইদুল ইসলাম হাকিমপুর থানার হিলির চারমাথা এলাকায় গেলে এসআই মতিয়ার রহমান তার মোটরসাইকেল থামিয়ে গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চান। কিন্তু তার কাছে তাৎক্ষণিক কাগজপত্র না থাকায় বাড়ি থেকে এনে দিতে চায়। পরে সে বাড়িতে গিয়ে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে আশরাফুল ইসলাম নামে একজনকে সঙ্গে নিয়ে কাগজপত্রসহ থানায় গেলে থানার ওসি মোখলেছুর রহমানের কক্ষে এসআই মতিয়ার ও পলাশ মোটরসাইকেলের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না দেখে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এ সময় ব্যবসায়ী জোবাইদুল চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাকে চড়-থাপ্পড় মারেন ও মৃত্যুর ভয় দেখান। পরে বাদী জোবাইদুল ইসলামকে অন্যায়ভাবে জোরপূর্বক থানায় আটকে রাখে ও তার সঙ্গে থাকা আশরাফুল ইসলামকে ধাক্কা দিয়ে থানা থেকে বের করে দেন। এ সময় উক্ত পুলিশ সদস্যরা আশরাফুল ইসলামকে এক লাখ টাকা চাঁদা না দিলে বাদীকে মিথ্যা ডাকাতি ও পেট্রোল বোমা মামলায় জড়ানো হবে বলে জানান।
পরে আশরাফুল ইসলাম থানায় এসে এসআই মতিয়ার রহমানের মাধ্যমে ওসিকে ২০ হাজার টাকা দিলেও ব্যবসায়ী জোবাইদুল ইসলামকে ছেড়ে না দিয়ে পরের দিন একটি ডাকাতি মামলায় আদালতে চালান দেন।
বাদী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করছেন আইনজীবী গোলাম ফারুক মিনহাজুল, শাহ্ দোরখ শান (এডমিরাল), নুরুল ইসলাম প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ