• শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৬:০১ পূর্বাহ্ন |

সিফাতকে হত্যার অভিযোগে স্বামীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

Seefat-1427982334রাজশাহী: নগরীর আইনজীবী মোহাম্মদ আলী রমজানের পুত্রবধূ ওয়াহিদা সিফাতের (২৭) মৃত্যুর ঘটনায় নিহতের স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার নগরীর রাজপাড়া থানায় নিহতের চাচা মিজানুর রহমান খন্দকার বাদী হয়ে নারী ও শিশু দমন আইনে যৌতুক দাবিতে হত্যা এবং সহায়তার অভিযোগে এ মামলা করেন।

মামলায় স্বামী আসিফ ওরফে প্রিসলিকে এক নম্বর, শ্বশুর মোহাম্মদ হোসেন রমজানকে দুই নম্বর ও শাশুড়ি নাহার নাজলীকে তিন নম্বর আসামি করা হয়েছে।

মামলার বিবরণে বলা হয়, পাঁচ বছর আগে নগরীর মহিষবাথান এলকার হোসেন রহজানের ছেলে আসিফের সঙ্গে ওয়াহিদা সিফতের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তারা শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে একই বাড়িতে থাকতেন। আসিফ বেকার থাকায় ব্যবসার নামে ২০ লাখ টাকা সিফাতকে তার বাবার বাড়ি থেকে নিয়ে আসতে বলেন। তবে সিফাত তা দিতে অস্বীকার করলে তাকে মালদর ও মানসিকভাবে চাপ প্রয়োগ করতেন আসিফ। তারা সিফাতকে চাকরি করতেও বাধা দিতেন। চাকরির পরীক্ষা দেয়ার জন্য ঘটনার দিন রাত ১১টার ধুমকেতু ট্রেনে ঢাকায় যাওয়ার কথা ছিল সিফাতের। রাত সোয়া ১০টার দিকে তার শ্বশুর ফোন করে সিফাতের ভাইকে জানান, সে মূমুর্য়ূ অবস্থায় ঘরে পড়ে আছে। পাঁচ মিনিট পর আবার তিনি বলেন, সিফাত গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

আসিফ সিফাতকে মারধর করলে তার শ্বশুর মিমাংসা করে দিতেন। কিন্তু তিনি এখন হত্যার ঘটনা আড়াল করতে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিচ্ছেন।

মামলায় আরও বলা হয়, বিবাদীরা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লাশ মর্গে রেখে চলে যায়। লাশের বিভিন্ন স্থানে জখম, গলায় গোলাকার দাগ, নাক ও মুখে রক্ত দেখতে পাওয়া যায়।

বাদি দাবি করেন, স্বামী ও শ্বশুর-শ্বাশুড়ি মিলে ২০ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য তাকে হত্যা করেছে। স্থানীয় লোক হওয়ায় মৃত্যুর ঘটনাকে আড়াল করার জন্য ৩০ মার্চ লাশ ময়নাতদন্ত করা হয়েছে এবং একই তারিখে তদন্ত প্রতিবেদন তারা আসার পূর্বেই প্রদান করা হয়েছে। ময়নাতদন্তে মাথায় জখমের বিষয়টি উল্লেখ থাকলেও শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের বিষয়টি আড়াল করা হয়।

বাদী আরও জানান, সিফাতের শ্বশুর একজন আইনজীবী হওয়ায় নিজের প্রভাব দেখিয়ে ঘটনাটি মিমাংসার জন্য বার বার বলেন। তিনি আইনজীবী হয়ে প্রভাব দেখিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে ঘটনাটি ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টা করছেন।

আশিক ওরফে প্রিসলিক বর্তমানে জেলা হাজত রয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর মহিষ বাথান এলাকার আইনজীবী রমজানের বাড়ি থেকে তাকে আটক রাজপাড়া থানা পুলিশ।

এ ব্যাপারে রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান জানান, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন তারা পেয়েছেন। তাতে মাথায় জখমের কথা বলেছেন চিকিৎসক। কিন্তু কি কারণে মাথায় জখম হলো, সেটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। এখন যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে পাস করা ওয়াহিদা সিফাতকে গত রোববার রাত ১০টার দিকে তার স্বামীর বাসা থেকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ