• বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪২ অপরাহ্ন |

সৈয়দপুরে বান্ধবীর সাথে জোর পূর্বক বাল্যবিয়ে

Biaসিসি নিউজ: সৈয়দপুরে দশম শ্রেণির এক ছাত্রকে জোর করে বাল্যবিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রের পরিবারের পক্ষ থেকে সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) বরাবরে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা গেছে, সৈয়দপুরের পাশের পাবর্তীপুর উপজেলার বেলাইচণ্ডী ইউনিয়নের সোনাপুকুর চাকলা গ্রামের মো. তোফায়েলের ছেলে মঞ্জুরুল ইসলাম ওরফে রুবেল (১৫) তার মামা কামারপুকুর বাগানবাড়ী এলাকার মো. বাবুল হোসেনের বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রুবেল একই এলাকার তার এক নারী সহপাঠীর বাড়িতে ক্লাসের পড়া দেখাতে যায়। ওই সময় রুবেলকে আটকে রেখে নারী সহপাঠীর সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হয়। আর ওই বাল্যবিয়ে রেজিস্ট্রেশন করেন উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার (কাজি) মো. রোস্তম আলী। এদিকে এ ঘটনার খবর পেয়ে স্কুলছাত্র রুবেলের মামা ও মামি তৎক্ষণাৎ ওই ছাত্রীর বাড়িতে গেলে তাদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করা হয়। ওই বাল্যবিয়ে দেওয়ার পর থেকে রুবেলকে স্কুলছাত্রীর বাড়িতে জোর করে আটকে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় রুবেলের মামি মোছা. লিপি আক্তার গত শুক্রবার সৈয়দপুর উপজেলা ইউএনও বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ছাড়া রুবেলকে জোর করে আটকে রাখার বিষয়ে তার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। আজ রোববার পর্যন্ত আটক স্কুলছাত্র রুবেলকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

কামারপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জিকো আহমেদ জানান, ইউএনওর নির্দেশ পেয়ে গত শুক্রবার রাতেই তিনি স্কুলছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে তার পবিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছেন। এ সময় তারা রুবেলের সঙ্গে সোহাগীর বাল্যবিয়ে দেওয়ার সত্যতা অপকটে স্বীকার করে। তারা জানায়, তাদের দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ