• রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০১:২২ অপরাহ্ন |

বৈশাখে ঘর সাজানো

1লাইফস্টাইল ডেস্ক: বছর ঘুরে আবার এলো পহেলা বৈশাখ । এলো নতুন একটি বছর । আর বছরের এই প্রথম দিনটিকে ঘিরে বাঙালীর মনে লাগে উৎসবের দোলা । বৈশাখ বাঙালীর সাবর্জনীন উৎসব ।আর তাই বছরের প্রথম দিনটিকে বরণ করে নিতে প্রস্তুত প্রতিটি বাঙালী । পহেলা বৈশাখ ঘিরে চারদিকে শুরু হয়ে গেছে সাজ সাজ রব । এই সাজের ছোঁয়া লেগেছে মানুষের পোশাকে, অন্দরে, খাবার থেকে সবখানে । এই দিনটিতে মানুষ নিজে যেমন সাজতে ভালবাসে তেমনি সাজাতে ভালবাসে আপন গৃহটিকেও । উৎসবের এই দিনটিতে ঘরটিকে সাজাতে হবে রঙিন করে ।এই সময়ের গৃহসজ্জায় লাল, সাদা, নীল, হলুদ, সবুজ এসব রংগুলো প্রাধান্য পাবে ।

গৃহসজ্জার ক্ষেত্রে যে ঘরটি প্রথমেই প্রাধান্য পায় সেটি হচ্ছে বসার ঘর । কারণ অতিথি এলে এই ঘরেই তাকে অভ্যর্থনা জানানো হয়, তাই এই ঘরটিকে সাজাতে হবে আকর্ষণীয় ও রঙিন করে ।এটা যেহেতু বাঙালীর উৎসব তাই গৃহসজ্জায় বাঙালীয়ানা ছাপ যেন থাকে শতভাগ । তাই সাজের ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে হবে দেশীয় উপাদান । যেমনঃ মাটির শো-পিস, প্রদীপ, নকশী কাঁথা, হাতপাখা, আলপনা ইত্যাদির সমন্বয়ে সাজালে বাঙালীর ঐতিহ্য ফুটে উঠবে । এই দিনটিতে মেঝেতে  বসার আয়োজন করা যেতে পারে । সেক্ষেত্রে শীতল পাটি, নকশী কাঁথা ইত্যাদির উপর কতগুলি রঙিন কুশন ছরিয়ে দিয়ে বসার আয়োজন করা যেতে পারে । সেক্ষেত্রে হালকা কোন রঙের স্বচ্ছ পর্দা হলে ভাল লাগবে ।ঘরের কোনগুলি সবুজ গাছ আর মাটির শো-পিস দিয়ে সাজাতে হবে ।সেই সাথে মেঝের ঠিক মাঝখানে আলপনা একে তার মাঝে প্রদীপ জ্বালিয়ে দিলে বাঙ্গালী ঢং-এ গৃহসাজের শতভাগ পূর্ণ হবে।

একইভাবে খাবার ঘর ও শোয়ার ঘরকেও বর্ণিল সাজে সাজিয়ে তুলতে হবে। এই ঘরের প্রধান অংশ হচ্ছে খাবার টেবিল, তাই টেবিলটিকে সাজাতে হবে দেশীয় উপাদান দিয়ে। টেবিল রানারটি শীতল পাটি, বাশ অথবা নকশী কাঁথার তৈরি হতে পারে। রানারের উপর মাটির মোমদাণী, বাঁশের তৈরি গ্লাসস্ট্যান্ড ও মাটির ফুলদানীতে কিছু তাজা ফুল দিয়ে সাজালে টেবিলটি আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। ঘরের এক কোনে রাখা যেতে পারে মাটির টবে কিছু সতেজ গাছ। এই ঘরের পর্দা হিসাবে বাঁশের চিক ব্যবহার করলে ভাল লাগবে। তাছাড়া রং বেরং এর পর্দাও ঝোলানো যেতে পারে। এই ঘরের দেয়ালে টেরাকোটা ঝোলালে ঘরটিতে ভিন্ন মাত্রা যোগ হবে।

শোয়ার ঘরের সাজের ক্ষেত্রে বিছানার চাদর ও পিলোকাভার উজ্জ্বল রঙ এর হতে হবে । বিছানার চাদরের সাথে মিলিয়ে পর্দার রঙ ব্যাবহার করতে হবে । শোয়ার ঘরে লোকজ আমেজ ফুটিয়ে তুলতে বিছানার উপর একটি শীতল পাটি বিছিয়ে দিতে হবে । সেই সাথে একটা হাতপাখা রাখতে হবে । মেঝেতে একটা রঙিন শতরঞ্জি বিছিয়ে দিলে ঘরটি আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে । শতরঞ্জির পরিবর্তে মাদুরও বিছানো যেতে পারে ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ