• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৪২ পূর্বাহ্ন |

পার্বতীপুরে তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিবেশীর হামলায় নিহত ১

nihotoপার্বতীপুর প্রতিনিধি : রাস্তার বৈদ্যুতিক বাল্ব ঢিল মেরে ভাঙাকে কেন্দ্র করে  দিনাজপুরের পার্বতীপুরে দুই প্রতিবেশীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন দুজন। আহতদের উদ্ধার করে দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে । নিহত ব্যক্তির নাম সফদার হোসেন (৬০)। বৃহস্পতিবার ভোরে দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিনি উপজেলার হামিদপুর গ্রামের ছানার উদ্দিনের ছেলে। আহতরা হলেন নিহত সফদার হোসেনের দুই ছেলে হারুন আর রশিদ (৩৫) ও আমিনুল ইসলাম (৩২)।

পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই নওয়াবুর রহমান জানান, সফদার হোসেন বুধবার রাত ৯টার দিকে বাড়ির সামনে অন্ধকার হওয়ায় ইলেকট্রিক লাইট পোস্টে বৈদ্যুতিক বাল্ব লাগান। এ সময় বাড়ির পার্শ্ববর্তী সামসুল হকের ছেলে রানা ইংকু (২৫) সেই বাল্ব ভাঙার জন্য ঢিল মারলে ঢিলটি বাড়িতে পড়ে। এ সময় সফদার হোসেনের ছেলে হারুন আর রশিদ বাড়ির বাইরে এসে দেখতে পায় রানাকে। শুরু হয় বাগ্‌বিতণ্ডা। একপর্যায়ে দুই পরিবারের সবাই বাড়ি থেকে বের হলে শুরু হয় সংঘর্ষ। সংঘর্ষের একপর্যায়ে লাঠির আঘাতে সফদার হোসেনের মাথা ফেটে প্রচুর রক্তক্ষরণ শুরু হয়। সফদার হোসেনের দুই ছেলে হারুন আর রশিদ ও আমিনুল ইসলাম বল্লমের আঘাতে গুরুতর আহত হন। আহতদের রাতেই দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুই ছেলের অবস্থার একটু উন্নতি হলেও বাবা সফদার হোসেন মারা যান ।

এলাকাবাসী ফেরদৌস ও রায়হান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দুই পরিবারের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। বুধবার রাতে বৈদ্যুতিক বাল্ব ভাঙাকে কেন্দ্র করে সামসুল হক, তার স্ত্রী শেফালী বেগম, দুই ছেলে রানা, হাসান ও রানার স্ত্রী মনিরা বেগম লাঠিসোঁটা ও বল্লম নিয়ে সফদার হোসেন ও তার দুই ছেলেকে আঘাত করেন। পুলিশের এসআই নওয়াবুর ঘটনাস্থল থেকে লাঠিসোঁটা ও বল্লম উদ্ধার করেছে।

পার্বতীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহমুদুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ