• শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৩৫ পূর্বাহ্ন |

রাজারহাটে পুলিশ বনাম পুলিশ!

Policরফিকুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম): কুড়িগ্রামের রাজারহাট থানায় চাঁদাবাজির অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত সুমন (২৮) নামের এক সন্ত্রাসীকে ছাড়ানোর তদবিরে এসে রাজারহাট থানার দারোগা ওয়াহেদুজ্জামানের সঙ্গে অশালীন আচরণ করার অভিযোগ মিলেছে। ঘটনায় পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী থানায় বর্তমান কর্মরত কনস্টেবল (পুলিশের পিকআপ ভ্যান চালক) হারুণ-অর-রশিদ এর বিরুদ্ধে শুক্রবার রাতে থানায় একটি জিডি দায়ের হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে উপজেলার সর্বত্রে তোলপাড় চলছে।
পুলিশ ও জিডি সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে রাজারহাট উপজেলার উমর মজিদ ইউপি’র ধনঞ্জয় এলাকার আতাউর রহমানের পুত্র এলাকার চিহিৃত সন্ত্রাসী ও একাধিক মামলার আসামী চাঁদাবাজির অভিযোগে সুমন (২৮) কে পুলিশ গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে। আটককৃত সুমনকে তদবিরে ছাড়ানোর জন্য শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে একদল মাস্তান নিয়ে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার জিগাবাড়ী এলাকার আবুল হোসেনের পুত্র ও বর্তমানে পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী থানায় কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল (পুলিশের ভ্যান চালক) হারুণ-অর-রশিদ (৩০)। সে তার মায়ের অসুস্থ্যতার কথা বলে আটোয়ারী থানার ওসির নিকট মৌখিকভাবে একদিনের ছুটি নিয়ে বাড়িতে আসে এবং শুক্রবার রাতে রাজারহাট থানায় এসে চাঁদাবাজ সুমনকে ছাড়িয়ে নিতে এসআই ওয়াহেদুজ্জামানের সঙ্গে বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে সে দারোগার সঙ্গে অশালিন আচরণ করে দ্রুত সটকে পড়ে। তাৎক্ষণিকভাবে দারোগা ওয়াহেদুজ্জামান বিষয়টি আটোয়ারী থানার ওসির সরকারি মুঠোফোনে অবহিত করে রাজারহাট থানায় ওই কনস্টেবলের বিরুদ্ধে একটি জিডি দায়ের করেন। যাহার জিডি নং-৭১৮, তাং-১৭-০৪-২০১৫ ইং। এ বিষয়ে রাজারহাট থানার ওসি মো. আব্দুর রশিদ বলেন, আটককৃত সুমন এলাকার একজন চিহিৃত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ এবং তার বিরুদ্ধে রাজারহাট থানায় দাঙ্গা-হাঙ্গামার মামলা রয়েছে। এস আই ওয়াহেদুজ্জামানের সঙ্গে একজন কনস্টেবলের অশালীন আচরণ করাটা অত্যন্ত দুঃখ জনক। এ জন্য শুক্রবার রাতেই থানায় একটি জিডি দায়ের হয়েছে। ওই জিডির বিষয়টি তার কর্মরস্থ আটোয়ারী থানার ওসিকে অবহিত করা হয়েছে। চাঁদাবাজির অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত সুমনের বিরুদ্ধে ধনঞ্জয় এলাকার রোস্তম আলী নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে গতকাল একটি চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেছেন।যার মামলা নং-১৩, তাং-১৮-০৪-২০১৫ইং। অভিযুক্ত আটোয়ারী থানার কনস্টেবল হারুণ-অর-রশিদের ০১৯৩৯৫১৯১৬৮ নম্বর তার মুঠোফোনে শুক্রবার রাত ১১টা ২৪ মিনিটে কল দিয়ে কথা বললে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, ভাই আমি বর্তমানে আমার কর্মস্থল পঞ্চগড়ে আছি বলে দ্রুত লাইনটি কেটে দেন। পুলিশ অফিসারের সঙ্গে একজন কনস্টেবলের এ ধরণের আচরণে রাজারহাট থানার সকল পুলিশ অফিসার ও কনস্টেবলরা হতভম্ব। তারা অভিযুক্ত ওই পুলিশ কনস্টেবলের বিভাগীয় শাস্তির দাবী জানিয়েছেন। ঘটনাটি নিয়ে উপজেলার সর্বত্রে তোলপাড় চলছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ