• বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন |

রাজারহাটে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কাজে ব্যাপক অনিয়ম

Oniরফিকুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপথ বিভাগের তত্বাবধানে রাজারহাট-তিস্তা সড়কটি মেরামতের জন্য ১৬ লাখ টাকার নির্মিত কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সরজমিনে জানা যায়, সম্প্রতি ই-টেন্ডার-এর মাধ্যমে রাজারহাট-তিস্তা সড়কটি মেরামতের জন্য কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপথ বিভাগ খোলা দরপত্র (ওটিএম) আহ্বান করে। এতে অস্বাভাবিক নিম্ন দরে কুড়িগ্রামের ‘টেস্টিনিকেতন’ নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজটি পান। ১২ ফুট প্রস্থ সাড়ে ৩ কি. মি. মেরামতের কাজটি শুরু হয় গত ৪ এপ্রিল। কাজটি কোথাও ১২ কোথাও ৭ মিলিমিটারের সিলকোর্ট করার কথা থাকলেও পুরো কাজটি ৭ মিলি সিলকোর্ট করার অভিযোগ উঠেছে। শতভাগ এলসি (ভাঙ্গা) পাথর দিয়ে মেরামতের কথা থাকলেও পুরো কাজটিতে পি পাথর ব্যবহার করা হয়েছে। এদিকে গ্রেডেশন ছাড়াই সংশ্লিষ্ট কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. মোজাম্মেল হক ঠিকাদারের সঙ্গে যোগসাজস করে যেনতেনভাবে কাজটি সম্পন্ন করার চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। গত ১৫ ও ১৬ এপ্রিল সড়কটি মেরামতের কাজটি সাংবাদিকরা পরিদর্শনে গিয়ে কয়েক ঘন্টা অপেক্ষা করেও দায়িত্ব প্রাপ্ত এসও মো. মোজাম্মেল হকের দেখা মেলেনি এবং কিছু কিছু চেইনএজে কাজ না করে সাড়ে ৩ কি. মি. রাস্তা মেরামতের কাজ গত ১৭ এপ্রিল সম্পন্ন করার তথ্য পাওয়া গেছে এবং ওইসব স্থান বালু দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়েছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত এসও মো. মোজাম্মেল হকের মুঠোফোনে একাধিকবার কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এ বিষয়ে কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হামিদুল হকের ০১৭১১-৭৮৭৯০৫ নম্বরের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে সরকারের বিভিন্ন ধরণের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের ফিরিস্তি তুলে ধরে বলেন, মেরামত কাজ শেষ হলেও এখনো বিল দেয়া হয়নি। আগামী দু’একদিনের মধ্যে কাজটি পরিদর্শন পূর্বক বিল প্রদান করা হবে। আর দায়িত্ব প্রাপ্ত উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোজাম্মেল হকের বিষয়ে কথা হলে তিনি বিষয়টি কৌশলে এড়িয়ে যান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ