• শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন |

নীরব বিপ্লব ঘটানোর আহবান খালেদার

Khaladaসিসি নিউজ: আসন্ন তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিজের দল সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে ভোট চেয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ২৮ এপ্রিল ‘নীরব প্রতিশোধ’ নিতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ‘২৮ এপ্রিল মঙ্গলবার নীরব প্রতিশোধ নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। আপনাদের ভোট অন্যায়ের বিরুদ্ধে এক বিরাট শক্তি। ভোট হচ্ছে জনগণের এক বিরাট ক্ষমতা। সঠিকভাবে সেই ক্ষমতা প্রয়োগ করুন। নীরব বিপ্লব ঘটান।’
ভোটারদের উদ্দেশ্য করে বিএনপি নেত্রী বলেন, ‘আপনারা কেউ ভয় পাবেন না। মা-বোন, মুরুব্বি, তরুণসহ সব বয়স ও শ্রেণি-পেশার ভোটার সকাল সকাল ভোটকেন্দ্রে যাবেন। লাইন ধরে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দেবেন। অনিয়ম ও কারচুপি দেখলে সবাই মিলে প্রতিবাদ করবেন।’
রোববার দুপুরে গুলশানে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
সরকারের বিরুদ্ধে টাকা বিলানোর অভিযোগ তুলে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘এরা যে টাকা বিলাচ্ছে, সেটা আপনাদেরই টাকা। ওদের কাছ থেকে এ টাকা নিলেও ভোট বিক্রি করবেন না। টাকা নেবেন কিন্তু বিবেক অনুযায়ী ভোট দেবেন। কারণ, ভোট বিক্রি আর ঈমান বিক্রি একই কথা।’
তিনি বলেন, ‘বর্তমানে আওয়ামী লীগ ও তাদের দোসরেরা যেভাবে উগ্র-সন্ত্রাসী ও দাম্ভিক হয়ে উঠেছে, কোনোভাবে এই তিন সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের ফল কেড়ে নিতে পারলে, তারা আপনাদেরকে আর মানুষ বলেই গণ্য করবে না।’
বুঝে-শুনে ভোট দিতে এবং ভোটের ফল বুঝে নিতে নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিএনপি নেত্রী বলেন, ‘আপনারা দয়া করে ঢাকা দক্ষিণে আমাদের সমর্থিত প্রার্থী মির্জা আব্বাসকে মগ মার্কায়, ঢাকা উত্তরে তাবিদ আউয়ালকে বাস মার্কায় এবং চট্টগ্রামে মনজুর আলমকে কমলালেবু মার্কায় ভোট দিন। কাউন্সিলর ও মহিলা কাউন্সিলার পদেও আমাদের সমর্থিত প্রার্থীদের ভোট দিন।’
তিনি বলেন, ‘আপনার ভোট হোক অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ভোট। আপনারা ভোট হোক বাসযোগ্য, পরিচ্ছন্ন, উন্নত, আধুনিক, যানজটমুক্ত, পরিকল্পিত ও নিরাপদ নগরী গড়ার পক্ষের ভোট। আমরা নবীন ও প্রবীণ এবং অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের সমন্বয় করে প্রার্থী বাছাই করেছি। আমরা মিথ্যা ও অসম্ভব প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পক্ষে নই।’
ভোট শেষে বিকাল থেকে ভোট কেন্দ্রে পাহারা বসবার জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান বেগম জিয়া।
‘গণনা শেষে ফলাফল বুঝে নিয়ে আপনারা কেন্দ্র ত্যাগ করবেন। যাতে আপনাদের দেওয়া রায় ওরা বদলে ফেলতে না পারে। ভোটের দিন এবং এর পরে কোনো উস্কানির ফাঁদে পা না দেওয়ার এবং কোনো গুজবে কান না দেওয়ার জন্য আমি অনুরোধ করছি। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তার ফলাফল মেনে নেওয়ার জন্যও আমি সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। আর সন্ত্রাস ও কারচুপি হলে প্রতিটি কেন্দ্র ও এলাকা থেকে প্রতিবাদ-প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে’, বলেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আপনি বিনা ভোটে রাজকীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়ে ধরাকে সরা জ্ঞান করছেন। এই দম্ভ ত্যাগ করুন। মনে রাখবেন, সব দিন সমান যায় না। এ পর্যন্ত যাই করেছেন, তিনটি সিটি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হতে দিন। এতে আপনার ক্ষমতা যাচ্ছে না।’
গণতন্ত্র ও সংলাপের পথে আসতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বেগম জিয়া বলেন, ‘ক্ষমতায় বসতে এবং বসার পর আপনি অনেক অপরাধ-অপকর্ম-অপকৌশল করেছেন। এখন রাষ্ট্রক্ষমতা আপনার কাছে বাঘের পিঠে সওয়ার হওয়ার মতো বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে। আপনি নামতে ভয় পাচ্ছেন। আপনি ভয় পাবেন না। আমরা আপনার মতো প্রতিশোধপ্রবণ নই। আপনি নম্র, ভদ্র, সংযমী হোন। উগ্র স্বভাব ও জিঘাংসার মনোবৃত্তি বদলান। আমরা আপনাকে সহি সালামতে নিরাপদে নামতে সাহায্য করব এবং একই সমতলে দাঁড়িয়ে নির্বাচন করব। মানুষ যাকে খুশি বেছে নেবে। আসুন, সেই পথটা অন্তত খুলে দেই।’
সংবাদ সম্মেলনে শুরুতে খালেদা জিয়া বলেন, ‘প্রলয়ঙ্করী ভূমিকম্পে প্রতিবেশী নেপাল ও ভারতে বহু মানুষের প্রাণহানি এবং আমাদের দেশের আহত ও নিহতের ঘটনায় আমরা গভীরভাবে মর্মাহত।’
বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের তিন মাসের আন্দোলনে পেট্রোল বোমা ও অন্যান্য নাশকতার জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে দায়ী করেন খালেদা জিয়া।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ