• মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন |

মিথ্যা কথা উনি চমৎকারভাবেই বলতে পারেন- প্রধানমন্ত্রী

Hasinaঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলন সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “তিনি (খালেদা জিয়া) মিথ্যার ফুলঝুরি দিয়ে গেছেন। মিথ্যা কথা উনি চমৎকারভাবেই বলতে পারেন।”
রোববার বিকেলে বিএনপি চেয়ারপারসনের সংবাদ সম্মেলনের দুই ঘণ্টার ব্যবধানে গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস সদস্যদের ভুয়া বিবৃতি এবং ভারতের বিজেপি প্রধান অমিত শাহের ফোনালাপের প্রসঙ্গ ধরে তিনি বলেন, “উনার মিথ্যাচারের কথা কী বলব! দেশের ভেতরে তো মিথ্যাচার করেই যাচ্ছেন, বিদেশিদেরও ছাড় দেননি। মিথ্যা কথা উনি চমৎকারভাবেই বলতে পারেন।”

জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত হরতাল-অবরোধে নাশকতায় মানুষ হত্যার ঘটনাগুলো তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, “খালেদা জিয়া আন্দোলনের নামে মানুষ যেভাবে পোড়াল, যে জঘন্য কাজ, বিশ্বে কোথাও কি কেউ দেখেছে? উনি যে মানুষকে পোড়ালেন তিনি আবার মানুষের কাছে ভোট চান কিভাবে? কোন মুখে ভোট চান? লজ্জাও তো লাগে।”

খালেদার জিয়া রাজনৈতিক সমঝোতা চাওয়ার যে কথা সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, তার প্রতিক্রিয়ায় শেখ হাসিনা বলেন, “নির্বাচনের আগে আমি ফোন করেছিলাম, উনি ছয় ঘণ্টা পর ফোন ধরলেন, উনার যে কথা, আমার এই জীবনে এই রকম মুখ ঝামটা, ঝাড়ি আর খাইনি।”
হাসিনা বলেন, “উনার ছেলে মারা গেল, আমি গেলাম সহানুভূতি জানাতে। আমি গেলাম, আমি নামতে পারলাম না, উনার গেটে তালা। আমাকে ঢুকতে দিল না, ভেতরে অনেক লোকজন ছিল, একটুকু ভদ্রতাও তো দেখায়নি।”

সম্মেলনে আসন্ন সিটি নির্বাচনে ‘নীরব প্রতিশোধ’ নেওয়ার হুমকি দেওয়ায় তার প্রত্যুত্তরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘কীসের প্রতিশোধ, কার উপর প্রতিশোধ? কোথায় নেবে? কার ওপরে নেবে? এগুলো ভেবে দেখতে হবে।’ ‘খালেদা জিয়া নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রচার চালালেও তা কোনো গণমাধ্যমে আসেনি। এমনকি তার গাড়িবহরের নিচে একজনের চাপা পড়লেও  কোনো গণমাধ্যমে সেই ছবি আসেনি,’ বিএনপি চেয়ারপারসনের নিরাপত্তাকর্মীদের গাড়ির নিচে চাপা পড়া এক তরুণের ছবি সংবাদ সম্মেলনে দেখিয়ে এই মন্তব্য করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই ছবি তো আপনারা দেখাননি। খালেদা জিয়া জনতার রুদ্ররোষেই পড়েছিলেন।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনের আগে আমি ফোন করেছিলাম, উনি ছয় ঘণ্টা পর ফোন ধরলেন। উনার যে কথা, আমার এই জীবনে এই রকম মুখ ঝামটা, ঝাড়ি আর খাইনি।’

ভোটারদের অর্থ নেওয়ার পরামর্শ দিয়ে খালেদার বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি আরো বলেন, ‘উনি অর্থ নেওয়াটা ভালো বোঝেন। ক্ষমতায় থাকতে অর্থ নিয়ে গেছেন। অর্থ নেওয়া, বেঈমানি করাটা উনার স্বভাব।’

খালেদা জিয়ার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘তিনি যখনই ক্ষমতায় এসেছেন জনগণের জীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছেন। মানুষ খুন করে এখন মানুষকেই যখন প্রতিশোধ নিতে বলেন, মানুষকে পুড়িয়ে মানুষকেই প্রতিশোধ নিতে বলেন, এর চেয়ে হাস্যকর আর কিছুই নেই।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ