• শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন |

সৈয়দপুরে রেলওয়ের জমি দখলে অবকাঠামো নির্মাণ !

image_216672.saidpur pic,30-04-2015সিসি নিউজ: সৈয়দপুরে রেলওয়ের জমিতে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনার দেড় মাসের মাথায় আবারও রেলওয়ের জায়গায় পাঁকা অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে। এবার রেলওয়ের জমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে সৈয়দপুর শহরের সাহেবপাড়া রেলওয়ে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় রোডে। সেখানে আগে থেকে দখলে রাখা প্রায় ১০ শতক জায়গায় পাকা অবকাঠামো নির্মাণ করছেন ওই এলাকার প্রভাবশালী মোহাম্মদ হোসেন কসাই নামের এক ব্যক্তি।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মোহাম্মদ হোসেন কসাই ওই ব্যক্তি প্রথমে শহরের রেল কলোনির সাহেবপাড়া এলাকায় রেলওয়ের ফাঁকা পরিত্যক্ত জায়গায় নিজের দখলে নিয়ে অস্থায়ীভাবে বিশাল একটি গরুর খামার গড়ে তোলেন। এরপর গত এক সপ্তাহ আগে থেকে রেলওয়ের কোয়ার্টার সংলগ্ন দখলকৃত ওই জায়গাটিতে ভেতরে গরুর খামারের জন্য পাকা ঘর ও রাস্তা ঘেঁষে ১০টির মতো পাকা দোকানঘর নির্মাণ করছেন তিনি। বৃহস্পতিবার  দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় টিনের বেড়া দিয়ে ভেতরে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। প্রায় ১০টির মতো পাকা দোকান ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। পাকা দোকান ঘরে টিন ছাউনি দেওয়ার জন্য কাঠ লাগাচ্ছিলের দুইজন কাঠ মিস্ত্রী। কারা রেলওয়ের জায়গায় এসব পাকা ঘর নির্মাণ করছেন কাঠ মিস্ত্রিদের এমন প্রশ্ন করা হলে তারা কোন উত্তর না দিয়ে নিশ্চুপ থাকেন। পরক্ষণেই টিনের বেড়া সরিয়ে ভেতর থেকে বেরিয়ে আসেন এক যুবক। পরিচয় জানতে চাইলে তিনি জানান, তাঁর নাম, মোহাম্মদ সাদ্দাম হোসেন (৩৪)। তিনি মোহাম্মদ হোসেন কসাইয়ের ছেলে। রেলওয়ে জায়গায় পাকা অবকাঠামো নির্মাণ করছেন কেন এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, রেলওয়ের ওই জায়গায়টিতে বহুদিন ধরে তাদের গরুর খামার রয়েছে। এখন শুধুমাত্র ওই জায়গাতে গরুর খামারের জন্য পাকা ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। রেলের জমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করা অবৈধ কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা অনেকদিন ধরে সাহেবপাড়া এলাকায় বসবাস করছি। আর রেলওয়ের জমিতে তো অনেকেই পাকা অবকাঠামো নির্মাণ করছেন, আমরা করছি। আপনি বরঞ্চ চলে যান। সন্ধ্যায় আমার আব্বা গিয়ে আপনার সঙ্গে কথা বলবেন এই বলে তিনি আবারও টিনের বেঁড়া সরিয়ে ভেতরে ঢুকে পড়েন।
বাংলাদেশ রেলওয়ের সৈয়দপুর পূর্ত বিভাগের উর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী (এসএসএই) তহিদুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে, সাহেবপাড়া এলাকায় মোহাম্মদ হোসেন কসাইয়ের রেলওয়ের জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের বিষয়টি সম্পর্কে কিছুই জানেন না বলে জানান তিনি।
এ নিয়ে রেলওয়ের সৈয়দপুর পূর্ত বিভাগের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী (ইনচার্জ) মো. রফিকুল ইসলাম জানান, সৈয়দপুরে রেলওয়ের জায়গায় অসংখ্যক অবৈধ স্থাপনা রয়েছে। গত মাসেও রেলওয়ের পক্ষ থেকে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা  বেশ কিছু স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ পর্যায়ক্রমে রেলওয়ের জাগায় গড়ে ওঠা সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করবে। সাহেবপাড়ায় দখল হওয়া ওই জমি উচ্ছেদে মামলাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।
প্রসঙ্গত, গত ১৮ ও ১৯ মার্চ রেলওয়ে ভু-সম্পত্তি বিভাগ অভিযান চালিয়ে সৈয়দপুর রেলওয়ে স্টেশনের সামনে ও পিছনে, রেলওয়ে স্টেশন থেকে ২ নম্বর রেলওয়ে ঘুন্টি পর্যন্ত সৈয়দপুর – পাবর্তীপুর রেলওয়ে লাইনের দুই পাশের এবং শহরের বিমানবন্দর সড়কে গড়ে উঠা প্রায় দেড় শতাধিক পাকা-আধাপাকা অবৈধ স্থাপনা বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ