• শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৫:১২ পূর্বাহ্ন |

দিনাজপুর নার্সিং ইন্সটিটিউট সমস্যা জর্জরিত

dinajpur pic-----মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর : ১৮২০ সালে আজকের এই দিনে অর্থাৎ ১২ মে ইতালীর ফ্লোরেন্স নামক শহরে জন্মগ্রহন করেন নার্সিং প্রতিষ্ঠাতা ফ্লোরেন্স নাইটিংগেল। ফ্লারেন্স নাইটিংগেল ১৯১০ সালের ১ আগষ্ট ৯০ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। আজ তার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতিবছর বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও নার্সেস দিবস পালন করা হয়।
আজকের আন্তর্জাতিক নার্সেস দিবসে কেমন আছে দিনাজপুর নার্সিং ইন্সটিটিউটের প্রশিক্ষনার্থীরা। জেলার একমাত্র সরকারি নার্সিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র “দিনাজপুর নার্সিং ইন্সটিটিউট” এর অভ্যন্তরে দীর্ঘদিন থেকে খাবার ও থাকার অসুবিধাসহ বসবাস ও দিন-রাত পুরুষদের যাতায়াত থাকায় নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে প্রশিক্ষনার্থীরা।
দিনাজপুর নার্সিং ইন্সটিটিউটের নাম প্রকাশে অনিচ্ছিক তৃতীয় সেমিষ্টারের এক প্রশিক্ষনার্থী জানান, দিনাজপুর নার্সিং ইন্সটিটিউট দীর্ঘদিন থেকে নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়ে আছে। ইতিপূর্বে একাধিক দরজা থাকার জন্য বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশ হওয়ায় কর্তৃপক্ষ একটি দরজা বন্ধ করলেও এখনও একাধিক দরজা রয়েই গেছে। যে দরজা দিয়ে বিভিন্ন সময় পুরুষ মানুষ হোস্টেলের অভ্যন্তরে যাতায়াত করছে।
কর্তৃপক্ষ মেয়েদের হোস্টেলে নিরাপত্তার জন্য একাধিক নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োগ দিলেও নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে হাউজ কিপার শরিফুন নেছার স্বামী ও যুবক ছেলেসহ কয়েকজন পুরুষ বসবাস করছে এই হোস্টেলে। প্রতি মাসে সরকার কর্তৃক প্রশিক্ষনার্থীদের নির্দিষ্ট পরিমানে প্রশিক্ষণ ভাতা প্রদান করলেও এখান থেকে স্থানীয় ইনস্টিটিউট কর্তৃপক্ষ টাকা কর্তন করে রাখে। প্রশিক্ষনার্থীরা নিজের দেওয়া টাকা দিয়ে নিজেদের ইচ্ছে মতো বাজার বা খাবার খেতে পারেনা।
হাউজ কিপার শরিফুন নেছা প্রশিক্ষনর্থীদের জিম্মি করে তাদের কাছ থেকে খাবারের টাকা নিয়ে নিম্নমানের খাবার পরিবেশন করে প্রতি মাসে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। প্রশিক্ষনার্থীদের অবিভাবক সাক্ষাৎ করতে আসলে যত নিয়ম তাদের জন্য আর কারো প্রেমিক আসলে কিছু উৎকচ দিলে সব কিছু মাফ পাওয়া যায় শরিফুন নেছার কাছে। হোস্টেলের আশপাশ এলাকায় হাউজ কিপার শরিফুন নেছার ছেলের বন্ধুরা প্রতিনিয়তই প্রশিক্ষনার্থীদের বিরক্ত করে। যা প্রতিবাদ করতে গেলে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে নার্সিং ইন্সটিটিউট কর্তৃপক্ষ।
বসবাসের ক্ষেতে এই গরমের দিনে একটি রুমে ফ্যান নষ্ট হয়ে গেলে মেরামতের জন্য দীর্ঘদিনের অপেক্ষা করতে হয়। নইলে নিজ খরচে ঠিক করিয়ে নিতে হয় বলে একাধিক প্রশিক্ষনার্থীদের কাছ থেকে জানাযায়।
নার্সিং ইন্সটিটিটের ইন্সট্রাক্টর ইনচার্জ আঞ্জুয়ারা বেগম মেয়েদের প্রশিক্ষণের টাকা কর্তনের বিষয়টি অস্বীকার করে তিনি বলেন, হোস্টেলে প্রবেশের মতো আর কোথাও কোন অতিরিক্ত দরজা নেই। ইতিপূর্বে ছিলো তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। হোস্টেল অভ্যন্তরে হাউজ কিপার শরিফুন নেছার পরিবার থাকার অনুমতি স্থানীয় কর্তৃপক্ষ সিভিল সার্জন দিয়েছে। বখাটে যুবকদের কোন আড্ডা এখানে নেই। বর্তমানে সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করছে।
এ ব্যাপারে দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. সুলতান মো. শামসুজ্জামান বলেন, স্থানীয় অবিভাবক হিসেবে যতটুকু নজর দেওয়ার দেই। কিন্তু সার্বক্ষনিক নজর রাখা তো আর সম্ভব নয়। আমি এসেছি মাত্র দু’মাস আগে আর হাউজ কিপার দীর্ঘদিন থেকে হোস্টেলের অভ্যন্তরে বসবাস করছেন। আমি তাকে বসবাসের জন্য কোন অনুমতি দেয়নি। আগ থেকেই তিনি এখানে অবস্থান করছেন।
মহিলা সংগঠক ও সাবেক মহিলা কমিশনার মনোয়ার সানু বলেন, মহিলা হোস্টেলে পুরুষ বা বহিরাগত থাকা সম্পূর্ণ অনৈতিক। যা কখনো মেনে নেওয়া যায়না। নিরাপত্তার জন্য শুধু হাউজ কিপার একাই থাকতে পারে কিন্তু তার স্বামী বা অন্যকোন পুরুষ মানুষ থাকা ঠিক নয় বা এ রকম অনুমতি কেউ দিতে পারেননা। অনুমতি দিলেও তা নারীর অধিকারের বিরুদ্ধে বলে তিনি মনে করেন।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে প্রশিক্ষনার্থীদের সচেতন অবিভাবক ও দিনাজপুরের সচেতন নাগরিকরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ