• বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৫৩ অপরাহ্ন |

স্ত্রীকে অন্যের সঙ্গে বিয়ে দিল স্বামী

Hospitalচিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের চিলমারীতে পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রীকে তালাক দিয়ে জোরপূর্বক বিয়ে দিল অন্য এক যুবকের সঙ্গে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রমনা এলাকার মুদাফৎথানা সরকার পাড়া গ্রামে। ওই গ্রামের মৃত রইচ উদ্দিনের পুত্র নুর আমিন (৫৫) এর সাথে উলিপুর উপজেলার ধরনিবাড়ী ইউনিয়নের কিসামত মধুপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আশাদুজ্জামান মঞ্জুর কন্যা মোছাঃ মমতাজ বেগম (২৯) এর সঙ্গে ১৭ বছর পূর্বে বিবাহ হয়। নুর আমিন এর স্ত্রী মমতাজ বেগম রংপুরে প্যারামেডিকেল কোর্স শেষ করে দু-বছর ধরে পুরাতন জোড়গাছ বাজারে কেয়া ফার্মিসে নিয়মিতভাবে রোগী দেখে আসছিল। এরই এক পর্যায়ে কেয়া ফার্মিসীর মালিক হাসিনুর রহমানের সঙ্গে পরকীয়া সন্দেহ করে আসছিল তার স্বামী। গত ৪ মে কেয়া ফার্মিসীর মালিক হাসিনুর রহমান রাত সাড়ে এগারোটায় সোলার ব্যাটারী চার্জ করার জন্য মমতাজের বাড়িতে গেলে মমতাজের স্বামী উভয়কে পরকীয়া সন্দেহে আটক করে বেঁধে বেধরক মারধর করে। পরে স্ত্রীর কাছ থেকে জোরপূর্বক তালাকের কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে আবারো তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে হাসিনুরের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে লোক মারফতে হাসিনুরের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে চিলমারী হাসপাতালে ভর্তি করে। নুর আমিন ও মমতাজের এগারো বছরের একটি কন্যা সস্তান রয়েছে। এ ব্যাপারে মততাজ বাদি হয়ে চিলমারী মডেল থানায় একটি মামলা করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ