• বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৫৬ অপরাহ্ন |

বাজেটে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা পৌনে ২ লাখ কোটি টাকা

NBRসিসি ডেস্ক : ইতিহাসের সর্বোচ্চ রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে আসছে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেট। অভ্যন্তরীণ উৎসকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে আসন্ন বাজেটে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত হতে যাচ্ছে ১ লাখ ৭৬ হাজার ৩৭০ কোটি টাকা। যা চলতি অর্থবছরের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রার চাইতে ৪১ হাজার ৩৪২ কোটি টাকা বেশি। শতাংশের তুলনায় ২৩ দশমিক ৪৪ ভাগ বেশি।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে মতে, লক্ষ্যমাত্রা পূরণে প্রত্যক্ষ কর বা আয়কর খাতকে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। এই খাতে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৫ হাজার ৯৩২ কোটি টাকা।

সূত্রটি আরো জানায়, আয়করের পরই রাজস্ব আদায়ে স্থানীয় পর্যায়ে মূসক বা ভ্যাটে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। মূসকে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৩ হাজার ৯০২ কোটি টাকা। আর সবচেয়ে কম লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে আমদানি পর্যায়ে শুল্ক খাতকে। এখাতে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে মাত্র ৪৬ হাজার ৫৩৬ কোটি টাকা।

সূত্র আরো জানায়, করযোগ্য আয় যাদের রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে আয়কর আদায়ে আরো কঠোর হবে এনবিআর। এর মধ্যে দেশের প্রায় দেড় লাখ বাড়ির মালিককে পরিপূর্ণভাবে আয়করের আওতায় আনা হবে। এছাড়াও উপার্জনক্ষম সকল নাগরিকের তথ্য যাচাই-বাছাই করে করের আওতা বৃদ্ধি করার প্রতি বিশেষ নজর দেবে সরকার।

অনুরূপভাবে ২০১৫ সালের জুন মাস থেকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা সংস্থা’র (আইএমএফ) আদলে প্রণীত ভ্যাট আইন কার্যকর হতে যাচ্ছে। আর এটি কার্যকর হলে দেশের অভ্যন্তরীণ বাজার থেকে ভ্যাট আদায় উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাবে। তাই রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে রেকর্ড পরিমাণ মূসক আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এদিকে অর্থমন্ত্রণালয়ের সম্মতিক্রমে চলতি অর্থবছরের রাজস্ব আদায়ের সংশোধিত নতুন লক্ষ্যমাত্রা ১ লাখ ৩৫ হাজার ২৮ কোটি টাকা চুড়ান্ত করেছে প্রতিষ্ঠানিটি। সংশোধিত রাজস্ব আদায়ের নতুন লক্ষ্যমাত্রায় অন্যান্য খাতে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা কমানো হলেও ব্যাতিক্রম আমদানি শুল্ক খাত।

এ খাতে চলতি অর্থবছরের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ১ হাজার ৭৮০ কোটি টাকা বাড়িয়ে ৩৭ হাজার ৫০০ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। অর্থবছরের শুরুতে আমদানি শুল্ক বাবদ রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ৩৫ হাজার ৭২০ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল। অন্যদিকে সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রায় আয়কর খাতে লক্ষ্যমাত্রা ৯ হাজার ২৩৬ কোটি টাকা কমিয়ে ৪৯ হাজার ২৬৪ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। যদিও বর্তমানে এখাতে রাজস্ব আদায়ে প্রবৃদ্ধি রয়েছে ৩১.১৩ শতাংশ।

একইভাবে অভ্যন্তরীণ মূসক খাতে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ৮ হাজার ২৩৬ কোটি টাকা কমিয়ে ৪৮ হাজার ২৬৪ কোটি টাকার নতুন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। অর্থবছরের শুরুতে এ খাতে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৫৬ হাজার ৫০০ কোটি টাকা।

আসছে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা ও চলতি অর্থ বছরের বাজেট নিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এনবিআরের সঙ্গে দফায় বৈঠক করে চলছেন। সর্বশেষ গতকাল এ বিষয়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।বৈঠকে চলতি অর্থবছরের দেশের রাজস্ব আদায়ের সামগ্রিক চিত্র, খাত ভিত্তিক রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা, বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর হার নির্ধারণ, রাজস্ব আদায়ে আসছে বছরের কৌশলসহ যাবতীয় বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ