• বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৫৮ অপরাহ্ন |

নারী ভাইস চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

Mamlaডিমলা প্রতিনিধি: নীলফামারীর ডিমলায় সরকারি কাজে বাধা প্রদান ও হুমকি প্রদানের অভিযোগে উপজেলা পরিষদের জামায়াত সমর্থিত নারী ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সিদ্দিকার বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছে ডিমলার থানার উপ-পরির্দশক শফিয়ার রহমান। শক্রবার রাতে তিনি এই ডায়েরী দাখিল করেন।
ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রুহুল আমিন খান জানান, শক্রবার বিকালে থানার উপ-পরির্দশক তাইজুল ইসলামের নেতৃত্বে থানার একদল পুলিশ দশম সংসদ নির্বাচনের ভোট কেন্দ্রে অগ্নিসংযোগ ও নাশকাতা সৃষ্টির মামলার প্রধান আসামী জামায়াত কর্মী আল কদরকে গ্রেফতারের জন্য শহরের বাবুরহাটস্থ নিজ বাড়িতে হাজির হয়।
এ সময় আল কদরের স্ত্রী উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান ও জামায়াতের নারী নেত্রী আয়েশা সিদ্দিকা কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তাসহ পুলিশ সদস্যদের বাড়ি প্রবেশ করে বাঁধা প্রদান করে অসৌজন্যমূলক আচারণ শুরু করে বলেন ভাইস চেয়ারম্যানের স্বামীকে গ্রেফতার করা সহজ নয় বলে পুলিশসদস্যদের গালিগালজ এবং দেখে নেওয়ার হুমিক দেন।
অনেক চেষ্ঠার পর পুলিশ সদস্যরা বাড়িতে প্রবেশ করে নারী ভাইস চেয়ারম্যানের স্বামী আল কদরকে গ্রেফতার করে।
এঘটনারয় সরকারি কাজে বাঁধা প্রদান ও পুলিশের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরন এবং হুমকি প্রদান করায় ডিমলার থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক শাহজাহান আলী শুক্রবার রাতে উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সিদ্দিকার বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি নং-৬০৭) দায়ের করে।
অভিযোগ অস্বীকার করে ডিমলা উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সিদ্দিকা বলেন, ‘আমি একজন জনপ্রতিনিধি এবং আইনরে মানুষ। আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে শুধু তাদের জিজ্ঞাসা করেছি ওয়ারেণ্ট আছে কিনা। তারা আমাকে ওয়ারেন্ট দেখানো মাত্রই তাদের হাতে স্বামীকে তুলে দিয়েছি।’
ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহুল আমিন খান আলো বলেন , আল কদরকে শুক্রবার বিকালে গ্রেফতার করে শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। নারী ভাইস চেয়ারম্যান একজন জনপ্রতিনিধি তিনি আইন সর্ম্পকে জ্ঞাত হওয়ার পরেও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সরকারি কাজে বাঁধা এবং হুমকি দিয়েছেন। এটা অত্যান্ত দুঃখজনক ঘটনা। তাই ভবিষ্যতের জন্য ডায়েরীটি থানায় নথি ভূক্ত করা হয়েছে।
গত বছরের দশম সংসদ নির্বাচন চলাকালে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা ডিমলা সদর ইউনিয়নের কুমারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট কেন্দ্রে হামলা চালিয়ে ভোট কেন্দ্রে অগ্নিসংযোগ, ব্যালট পেপার ছিনতাই করে নিয়ে যায়।
এ ঘটনায় রাতেই ওই কেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিজাইডিং কর্মকর্তা বেলার হোসেন বাদী হয়ে হয়ে অজ্ঞাত শতাধিক ব্যক্তির নামে একটি মামলা (নং-১০) দায়ের করেন। উক্ত মামলার চার্জশিটভুক্ত পলাতক আসামী জামায়াত নেতা আল কদর।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ