• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০২:৩৪ অপরাহ্ন |

সুন্দরবনে এবার কুমির গণনা

kumir1432836034সিসি ডেস্ক: বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনে রয়েল বেঙ্গল টাইগার গণনা শেষে পয়লা জুন থেকে শুরু হচ্ছে কুমির গণনা।

 সুন্দরবনের বাংলাদেশ অংশের ছোট-বড় ৪শ ৫০টি নদী ও খালে বর্তমানে ১৫০ থেকে ২০০টি লবণ পানির কুমির রয়েছে। কুমির সংরক্ষণে ১ কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে এই গণনা কাজ চলবে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারী মাস পর্যন্ত। সুন্দরবন বিভাগ এতথ্য নিশ্চিত করেছে।

 বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জ কর্মকর্তা (এসিএফ) কামাল উদ্দিন আহমেদ জানান, সুন্দরবনের কোন্ কোন্ এলাকায় কুমির বেশি অবস্থান করে তা জেনে সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে এই গণনার কাজ চালানো হচ্ছে। এছাড়া কুমিরের বংশ বিস্তার বা তার জীবন যাত্রার হুমকিগুলো সনাক্ত করার পর তা মোকাবিলায় সুন্দরবন বিভাগ ব্যবস্থা নেবে।

 তিনি জানান, কুমির বছরে ৬০/৭০ টি ডিম পাড়ে। পুরুষ জাতের কুমিরের সঙ্গে স্ত্রী জাতের কুমিরের মিলন না হলে ওই সব ডিম থেকে বাচ্চা হয় না। এছাড়া বনের গুইসাপ ও শুকরসহ অন্যান্য বন্যপ্রানি ডিমগুলো খেয়ে ফেলে। যে কারণে এর প্রজনন বিঘ্নিত হয়।

 বন্যপ্রাণি ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ সুন্দরবনে জিপিএস সিস্টেমের সাহায্যে পয়লা জুন থেকে কুমির গণনার কাজ শুরু করবে। সুন্দরবন বিভাগের সহযোগিতায় ক্যারিনাম নামের একটি বেসরকারি সংস্থা কুমির গণনার কাজ করবে। এ কাজে ১০জনের একটি করে দল নৌযানের মাধ্যমে সুন্দরবনের অভ্যন্তরের নদী-খালে ঘুরে ভাসমান কুমির ও নদী বা খালের তীরে থাকা কুমির গণনা করবে।

 কুমিরের প্রজনন ও বংশ বিস্তারে কি-কি হুমকি রয়েছে তা সনাক্ত করে সুপারিশমালা তৈরি করে সুন্দরবন বিভাগকে জানাবে। পাশাপাশি কুমিরের হুমকিগুলো মোকাবেলায় সুপারিশ করতে বলা হয়েছে।

 সুন্দরবনের মধ্যে কুমির লবণাক্ত পানিতে থাকে। তবে ডিম পাড়ার সময় অপেক্ষাকৃত কম লোনা পানিতে চলে আসে। এই গণনার পর কুমিরের সংখ্যা কোন অঞ্চলে বেশি বা কম ও  প্রতি কিলোমিটারে কুমিরের ঘনত্বসহ বিভিন্ন বিষয় হাল নাগাদ তথ্য উঠে আসবে।

 ৬ হাজার ১৭ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের সুন্দরবনে জল ভাগের পরিমান ১ হাজার ৮শ’ ৭৪ বর্গ  কিলোমিটার। যা সমগ্র সুন্দরবনের ৩১ দশমিক ১৫ ভাগ। এই বিশাল জল ভাগের ছোট-বড় ৪৫০টি নদী ও খালে এই গণনার কাজ চলবে।

 রাইজিংবিডি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ