• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৫৮ পূর্বাহ্ন |

ঢাকা-টঙ্গী-জয়দেবপুর রুটে নতুন রেললাইন

Rail1433234851সিসি নিউজ: ঢাকা-টঙ্গী সেকশনে দুটি ও টঙ্গী-জয়দেবপুর রুটে একটি নতুন ডুয়েল গেজ রেল লাইন নির্মাণ হচ্ছে। ভারতের অর্থায়নে প্রকল্প দুটিতে মোট ব্যয় হবে ১ হাজার ১০৬ কোটি টাকা। পরামর্শক ব্যয় ধরা হয়েছে সাড়ে ৩০ কোটি টাকা।

মঙ্গলবার দুপুরে রেলভবনে এবিষয়ে একটি চুক্তি সই হয়েছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষে রেলের অতিরিক্ত মহাপরিচালক রফিকুল আলম (অবকাঠামো) এবং পরামর্শক প্রতিষ্ঠান আরভী ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েট আর্কিটেকচার্স প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালক এম মার্থি চুক্তিতে সই করেন।

অনুষ্ঠানে রেল মন্ত্রী মো. মুজিবুল হক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতি ছিলেন। এছাড়া চুক্তি সই অনুষ্ঠানে রেল মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. ফিরোজ সালাহ উদ্দিন, রেলের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেনসহ রেলের উর্ধ্বতন কর্মকতা এবং পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক বলেন, রেলের উন্নয়নে ভারতের অর্থায়নে এ পর্যন্ত ১২ প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে ছয়টি প্রকল্পের কাজ শেষ হয়েছে। আরো ছয়টি প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে।

মো. মুজিবুল হক বলেন, ঢাকা-টঙ্গী সেকশনে ৩য় ও ৪র্থ ডুয়েল গেজ রেল লাইন নির্মাণের প্রকল্পও ভারতের অর্থায়নে হবে। ভারতের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানগুলো সফলতার সঙ্গে বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ শেষে করেছে। এই প্রকল্পের কাজও সফলতার সঙ্গে দ্রুত শেষ করবে বলে মন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, প্রকল্প দুটি বাস্তবায়নের ফলে ঢাকা শহরের সঙ্গে পাশ্ববর্তী এলাকার রেল যোগাযোগ বৃদ্ধি পাবে। দেশের উত্তর ও দক্ষিণ অঞ্চলের সঙ্গে নিরাপদ, উন্নত ও দ্রুত রেল যোগাযোগ স্থাপিত হবে।

রেলমন্ত্রী বলেন, প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকা-টঙ্গীর মধ্যে বিদ্যমান রেল ট্র্যাকের সমান্তরাল ৪৮ দশমিক ৮০ কিলোমিটার নতুন ডুয়েল গেজ রেল ট্র্যাক নির্মাণ করা হবে। অপরদিকে সিগন্যালিংসহ টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনে বিদ্যমান রেলপথের সমান্তরাল ১২ দশমিক ২৮ কিলোমিটার ডুয়েলগেজ নতুন রেল ট্র্যাক নির্মাণ হবে।

চুক্তি অনুযায়ী ঢাকা-টঙ্গী ৩য় ও ৪র্থ ডুয়েল গেজ রেললাইন ও টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনে ডুয়েল গেজ ডাবল লাইন নির্মাণ করা হবে।  এ জন্য পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি মূল্য ধরা হয়েছে ৩০ কোটি ৫০ লাখ ৫৪ হাজার টাকা।

প্রকল্প দুটির মোট ব্যয় হবে ১ হাজার ১০৬ কোটি টাকা।  এজন্য ডিজাইন ও টেন্ডারিংয়ে ছয় মাস লাগবে বলে চুক্তি সাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়েছে। চলতি বছরের জুলাই থেকে এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে ২০১৮ সালের মার্চ মাসে শেষ হবে।

ভারতীয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক এ প্রকল্পে ঋণ দেবে। জয়েন্টভেঞ্চার কোম্পানি আরভি ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েট আর্কিটেকচার্স প্রাইভেট লিমিটেড এবং আয়েশা ইঞ্জিনিয়ারিং পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ