• মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১২:৪২ পূর্বাহ্ন |

সরাসরি সম্প্রচারকালে দুই সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা

us1440600422আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় সরাসরি সম্প্রচারের সময় এক টেলিভিশন সাংবাদিক এবং ক্যামেরাম্যানকে গুলি করে হত্যা করেছে এক বন্দুকধারী।

বুধবার সকালে ভার্জিনিয়া রাজ্যের বেডফোর্ড কাউন্টির মনেটায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত দুজন হলেন, ডব্লিউডিবিজে-সেভেন টেলিভিশনের রিপোর্টার অ্যালিসন পার্কার (২৪) ও ক্যামেরাম্যান অ্যাডাম ওয়ার্ড (২৭)।

টেলিভিশন স্টেশন ডব্লিউডিবিজে-সেভেন জানায়, পার্কার স্মিথ মাউন্টেইন লেকের কাছে ব্রিজওয়াটার প্লাজা শপিংমলে এক নারীর সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন। তখনই তাদের দিকে গুলি ছোড়ে ওই বন্দুকধারী।

এদিকে ঘটনার সময় অ্যালিসন যে নারীর সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন তিনি হলেন, স্থানীয় চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক ভিকি গার্ডনার। স্থানীয় দৈনিক রোয়ানক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, গার্ডনারের পিঠে গুলি লেগেছে এবং তার অস্ত্রোপচার চলছে।

পুলিশ ওই বন্দুকধারীকে খুঁজছে। ঘটনার পর পুরো এলাকা ঘিরে ফেলা হয় এবং ওই এলাকার স্কুলগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়। পরবর্তীতে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানায়, ওই বন্দুকধারীর নাম ভেস্টার লি ফ্লানাগান (৪১)। ডব্লিউডিবিজে-সেভেন চ্যানেলেই সে রিপোর্টার ছিল। ব্রাইস উইলিয়াম নামেও সে পরিচিত ছিল এবং এ নামেই সে রিপোর্ট করতো।

দুই সাংবাদিককে গুলি করে হত্যার পর সে নিজেই নিজ শরীরে গুলি করেছে। তবে সে বেঁচে আছে না মারা গেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

টেলিভিশন চ্যানেলটি থেকে জানানো হয়- ‘পার্কার শপিংমলের সামনে পর্যটন বিষয়ে এক নারীর সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন অ্যালিসন। তার সঙ্গে ছিলেন ক্যামেরাম্যান অ্যাডাম ওয়ার্ড। হঠাৎ বাইরে থেকে আটটি গুলি তাদের দিকে ছুটে আসে। আমরা দেখতে পেলাম তারা লুটিয়ে পড়লেন এবং ক্যামেরাটি মাটিতে পড়ে গেল। টিভি স্টেশন থেকেই তাদের চিৎকার শোনা যাচ্ছিল। ভিডিও ফুটেজে দ্রতগামী ওই বন্দুকধারীকে দেখা গেছে। তার পড়নে ছিল কালো প্যান্ট ও নীল জামা। হাতে বন্দুকও ছিল।’

এ ঘটনার ঘণ্টা দেড়েক পর ডব্লিউডিবিজে-সেভেনের মহাব্যবস্থাপক জেফরি মার্কস দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমি অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে এই খবর জানাচ্ছি যে, অ্যালিসন ও অ্যাডাম আজ সকালে মারা গেছেন। দুই সাংবাদিক স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে মারা যান। কিন্তু কী কারণে এবং কে তাদেরকে গুলি করে হত্যা করেছে, তা জানা যায়নি। তিনি বলেন, আমি বোঝাতে পারব না, ডব্লিউডিবিজে-সেভেন তাদের কী পরিমাণ ভালোবাসত। আমাদের হৃদয় ভেঙে গেছে।

টেলিভিশন ফুটেজে ছয়টি গুলির শব্দ শোনা যায়। গুলি শুরু হওয়ার পর হুড়োহুড়ির শব্দ ও ‘ওহ মাই গড’ বলে চিৎকার শোনা যায়। এছাড়া, সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগে পার্কারকে দৌড়ে সরে যাওয়ার চেষ্টা করতে দেখা যায়। এ সময় নিউজরুমে থাকা সঞ্চালক  বলেন, ‘ বুঝতে পারছি না সেখানে কি ঘটেছে। যত দ্রুত সম্ভব আমরা আপনাদের বিষয়টা জানাব। কি কারণে ওই রকম শব্দ হল আমরা সেটা খতিয়ে দেখছি।’

ভিডিওতে দেখা যায়, একজন বন্দুকধারী ভিডিওধারকের দিকে বন্দুক তাক করছে। এরপরই ক্যামেরা মাটিতে পড়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

ভার্জিনিয়া রাজ্যের গভর্নর টেরি ম্যাকালিফ বলেছেন, দুজন টিভি সাংবাদিককে গুলি করে হত্যার ঘটনাটি খুবই হতাশাজনক। তবে সন্ত্রাসের সঙ্গে এর যোগসূত্রতা নেই। এটি একটি অপরাধমূলক ঘটনা।

এদিকে দুই সাংবাদিক গুলিতে নিহত হওয়ার পর কেউ একজন টুইটারে হামলা ঘটনার ভিডিও পোস্ট করে যা থেকে মনে হচ্ছিল ফ্লানাগান নিজেই তা পোস্ট করেছে।  টুইটারকারী এতে সাবেক দুই সহকর্মীকে হত্যার কারণ ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘পার্কার তাকে (ফ্লানাগান) নিয়ে বর্ণবাদী মন্তব্য করেন। এ নিয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয়েছিল।

অ্যাডাম ওয়ার্ড সম্পর্কে টুইটারে তার মন্তব্য, ওয়ার্ড তার বিরুদ্ধে ওই টিভি চ্যানেলের মানবসম্পদ বিভাগে অভিযোগ জানিয়েছিল। তবে তাদের মধ্যে কী ঘটেছিল সে বিষয়টি পরিষ্কার নয়। এ ভিডিও ফেসবুকেও দেওয়া হয়। কিন্তু কিছুক্ষণ পর সে সব পোস্ট সরিয়ে ফেলা হয়।

তথ্যসূত্র : বিবিসি, সিএনএন, রয়টার্স অনলাইন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ