• শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন |

বদরগঞ্জে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ

Red Chilli Saidpur

বদরগঞ্জআজমল হক আদিল, বদরগঞ্জ (রংপুর): রংপুরের বদরগঞ্জে ইউপি সদস্যের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভাংচুর ও লাশ নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন এলাকাবাসি। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে উত্তেজিত জনতা তাকেও অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে পুলিশ ও রংপুর হতে রিজার্ভ ফোর্স এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
বৃহঃস্পতিবার (২৫ফেব্র“য়ারি) সকাল ১০টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, উপজেলার দামোদরপুর ইউপির ৮নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য হাজ্জাজুল আলম প্রামানিক(৫৬)সকালে  হার্টএ্যাটাক করলে স্বজনরা তাকে দ্রুত বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। কিন্তু এসে কোন ডাক্তারের দেখা না পাওয়ায় ওখানেই রোগীর মৃত্যু হয়। খোঁজ নিয়ে জানা যায় এ সময় ডাঃ তৌফিক দায়িত্বে থাকলেও তিনি মেডিকেলে অনুপস্থিত ছিলেন। ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকাবাসি উত্তেজিত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ব্যাপক ভাংচুর করে ও লাশ নিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এ সময় উপজেলা নির্বার্হি কর্মকর্তা কাজি আবেদা গুলশান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ঘটনাস্থলে গেলে তাকেও উত্তেজিত জনতা অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে বদরগঞ্জ থানা পুলিশ ও রিজার্ভ ফোর্স এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলিশ ও রিজার্ভ ফোর্স
মোতায়েন ছিল।
উপজেলা নির্বার্হি কর্মকর্তা কাজি আবেদা গুলশান জানান, পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রনে আছে।
রংপুর এসপি সার্কেল আতাউর রহমান জানান, পুলিশ ও রিজার্ভ ফোর্স এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। এখন পরিস্থিতি শান্ত ।
জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আহাদ আলি জানান, ডাক্তারের অভাবে রোগী মৃত্যুর ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি আরও জানান; যারা হাসপাতাল ভাংচুর করেছে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।
রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডাঃ আনিসুর রহমান জানান, কর্তব্যরত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ও যারা হাসপাতাল ভাংচুর করেছে তাদের বিরুদ্ধে বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আর্কাইভ