• সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১০:৫৪ অপরাহ্ন |

বদরগঞ্জে দলীয় প্রতীক পেতে বিএনপি প্রার্থীদের দৌঁড়ঝাঁপ

BNP-Badarganjআজমল হক আদিল, বদরগঞ্জ (রংপুর): ঘনিয়ে আসছে ইউপি নির্বাচন। এরই মধ্যে বিভিন্ন উপজেলার ইউনিয়নগুলোতে প্রার্থী যাচাই বাচাই করে প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরাও ঘরে বসে নেই। তারা দলীয় প্রতীক পেতে উপজেলা পর্যায়ের নেতাকর্মীদের কাছে দৌঁড়ঝাপ অব্যাহত রেখেছেন। সরেজমিনে বিভিন্ন ইউনিয়নের বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে এ পর্যন্ত প্রার্থী বাছাইয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় ভূগছেন স্থানীয় বিএনপি। গত দু-সপ্তাহ ধরে উপজেলা বিএনপি নেতাদের বাড়িতে দফায় দফায় বৈঠক করেও এপর্যন্ত উল্লেখযোগ্য তেমন কোন সিদ্ধান্তে পৌছাতে পারেনি। এদিকে উপজেলার ৮নং রাধানগর ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে ৪জন প্রার্থী দলীয় প্রতীক পেতে জোর তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা হলেন ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি নুরুজ্জামান প্রামানিক, সাধারন সম্পাদক আঃ রউফ, সাংগাঠনিক সম্পাদক আকবার আলি, এ্যাডঃ আরমান শাহেদি জুয়েল। মনোনয়ন প্রত্যাশি নুরুজ্জামান প্রাং জানান; দলীয় ফোরাম এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত দিতে পারেনি, অপেক্ষায় আছি, দেখা যাক কি হয়। উপজেলার ১২নং কুতুবপুর ইউপিতে নির্বাচনী মাঠে বেশ জোরে শোরে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি উত্তম কুমার সাহা। এখানে তার বিপরীতে মনোনয়নের দাবিতে তৎপর রয়েছেন ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মজনু। এছাড়াও সাবেক ছাত্রনেতা ও ১৫ নং লোহানীপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মামুদুজ্জামান সরকার নিপুল দলীয় মনোনয়ন পেতে আশাবাদী। তিনি তরুন প্রজন্মকে নিয়ে এগিয়ে যেতে চান। ৬নং রামনাথপুর ইউনিয়নে নিজ দলের মনোনয়ন পেতে বদ্ধপরিকর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি প্রভাষক রায়হান হাবিব। তিনি জানান, আমার বাবা মরহুম এ কে এম মোফাজ্জল হোসেন এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। বাবার ইমেজও দলের শক্ত অবস্থানের কারনে আমি অত্যন্ত আশাবাদি। জামায়াতে ইসলামির সঙ্গে জোটগত ভাবে এই ইউনিয়নে ভোট করলে এবং আমাকে মনোনয়ন দেয়া হলে আমি দলকে একটি যোগ্য চেয়ারম্যান উপহার দেব। ১৩ নং কালুপাড়া ইউপির বিএনপির সভাপতি প্রভাষক তাজকুর রহমান বলেন; দল মনোনয়ন দিলে জয়ের ব্যাপারে আমি একশত ভাগ আশাবাদি। ৭নং গোপিনাথপুর ইউনিয়নে একইভাবে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তরুন নেতা ও ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ফারুক হোসেন। ৯নং দামোদরপুর ইউনিয়নে ভোটযুদ্ধে ইতিমধ্যেই মাঠে সক্রিয় অবস্থানে আছেন সংগঠনের ইউনিয়ন সভাপতি রাজা মিয়া ও বদরগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক রেজওয়ানুল হক। তবে তারা দু’জনেই দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিবেন বলে জানান। ১১ নং গোপালপুর ইউনিয়নে দলীয় প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে চান দলের ইউনিয়ন সভাপতি বকুল মিয়া ও সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান। তবে ১০ নং মধুপুর ইউনিয়নে দলের সাংগাঠনিক সম্পাদক মাহবুব হোসেন জোরে শোরে প্রচারনায় অংশ গ্রহন করলেও অজ্ঞাত কারন দেখিয়ে দল থেকে পদত্যাগ করেন এবং ১৪ নং বিঞ্চুপুর ইউনিয়নে বিএনপির তেমন কোন প্রার্থীর কার্যক্রম দেখা যায়নি। প্রার্থীরা আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করার জন্য সৎ মনোভাব নিয়ে জনগনের কাছে আসার চেষ্টা করছেন। জনগনের কাছে তাদের নিজেদের অবস্থান তুলে ধরলেও মুল বাধা হিসেবে কাজ করছে দলীয় মনোনয়ন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ