• সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১০:৫৮ অপরাহ্ন |

সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার জিওএইচ শর্পে আগুন

সৈয়দপুরসিসি নিউজ:  অল্পের জন্য আগুনের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার জেনারেল ওভারহোলিং শর্প’র (জিওএইচ) গোডাউনের কয়েক কোটি টাকার মালামাল। আজ (মঙ্গলবার) ২২ মার্চ দুপুরে ওই শর্প’র গোডাউনের পাশে জ্বালানী কাঠ রাখা একটি কন্টেইনারে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।

ঘটনাটি রহস্যজনক সৃষ্টি করায় রেলকারখানা কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের একটি তদন্ত টিম গঠন করেছে। আগামী তিনদিনের মধ্যে টিমটিকে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া সৈয়দপুর জিআরপি থানায় একটি সাধারন ডায়রি করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ওই দিন দেশের বৃহত্তম সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার জেনারেল ওভারহোলিং শর্প’র প্রধান গোডাউনের পাশে থাকা একটি কন্টেইনারে ভেতর থেকে আকস্মিক আগুনের ধোঁয়া বের হতে থাকে। আগুনের ধোঁয়া বের হতে দেখে রেলওয়ে নিরাপত্তাবাহিনীর (আরএনবি) এক কর্মকর্তা সঙ্গে সঙ্গে সৈয়দপুর দমকলবাহিনীকে খবর দেয়। খবর পেয়ে সৈয়দপুর দমকলবাহিনীর কর্মীরা দ্রুত ছুঁটে এসে কারখানার অভ্যন্তরে গিয়ে আগুন নেভায়। স্টেশন ইনচার্জ মো. মিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে দমকলবাহিনীর কর্মীরা ঘন্টাখানেক চেষ্টা লাগিয়ে আগুন নিয়ন্তণে আনেন। আগুন লাগা কন্টেইনারে কারখানার কাজে ব্যবহারের জন্য জ্বালানী কাঠ রাখা ছিল। তবে ওই কন্টেইনারের পাশে ছিল জিওএইচ শর্প’র বড় একটি গোডাউনটি। আর ওই গোডাউনে রয়েছে প্রয়োজনীয় কয়েক কোটি টাকার বিভিন্ন ধরনের মালামাল। ফলে অল্পের জন্য আগুন থেকে রক্ষা পায় কারখানার জিওএইচ শর্প’র গোডাউনের ওইসব মূল্যবান মালামাল। তবে আগুনের সঠিক কারণ জানা যায়নি। আগুনে খবরে গোটা কারখানায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয়রা অভিযোগ তুলে বলেন বর্তমান সরকার সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানাটিকে ঢেলে সাজিয়ে তুলছে। এ অবস্থায় কোন গোষ্ঠী পরিকল্পিতভাবে নাশকতার মাধ্যমে কারখানাটি জ্বালিয়ে ছাড়খার করে দিতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে কিনা তা ক্ষতিয়ে দেখা প্রয়োজন।

সৈয়দপুর রেলওয়ে থানা পুলিশের ওসি এ, কে,এম লুৎফর রহমান জানান এ ঘটনায় তার থানায় একটি সাধারন ডায়রি করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক (ডিএস) নুর আহম্মাদ হোসেন সাংবাদিকদের  জানান, আগুনের সুত্রপাত জানা সম্ভব হয়নি। এটি উদঘাটনে তিন সদস্য বিশিষ্ঠ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে কারখানার ডিজেল সর্পের ইনচার্জ শামীম নেওয়াজ কে প্রধান করা হয়। অন্য দুই সদস্য হলেন জেনারেল ওভারহোলিং শপের ইনচার্জ আরিফুর রহমান ও কারখানার নিরাপক্তা বিভাগের ইনচার্জ (সিআই) আতাউর রহমান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ