• সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১০:২১ অপরাহ্ন |
শিরোনাম :
সৈয়দপুরে পূর্ব শক্রতার জেরে যুবককে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ ট্রেনের ভাড়া বাড়ানো হতে পারে : রেলমন্ত্রী জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে জাপার দুইদিনের কর্মসূচি প্রেমিকাকে রেললাইনের ধারে দাঁড় করিয়ে ট্রেনের নিচে প্রেমিকের ঝাপ ফুলবাড়ীতে কোরিয়ান মেডিকেল টিমের ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প উদ্বোধন বিয়ের দাবিতে চাচার বাড়িতে ভাতিজির অনশন সৈয়দপুর খাদ্য গুদাম শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার খানসামায় ট্রাক ও পিকআপের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১ পাঁচ বছরেও শেষ হয়নি ১৭৫ মিটার সেতুর কাজ: ভোগান্তি লক্ষাধিক মানুষের বৈঠকের মধ্য দিয়ে পাকেরহাটে যাত্রা শুরু করলো শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদ

বাংলাদেশের পাশে আছে আমেরিকা

নিশাসিসি নিউজ: যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বলেছেন, ‘দারিদ্র্য বিমোচন, খাদ্য নিরাপত্তা এবং মাতৃস্বাস্থ্য নিশ্চিতের ক্ষেত্রে বিশেষ সাফল্য প্রদর্শন করেছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি বিশ্ব অর্থনীতি এবং আন্তর্জাতিক শান্তি প্রতিষ্ঠায়ও বাংলাদেশের অবদান আজ সব মহলে সমাদৃত হচ্ছে।’ খবর এনআরবি নিউজের।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সুধী সমাবেশে শুভেচ্ছা বক্তব্যে নিশা দেশাই আরও বলেন, ‘উগ্রপন্থি এবং সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশ একযোগে কাজ করছে। দেশের নাগরিকদের রক্ষা এবং গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিতে পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে আমরা কাজ করছি।’ নিশা দেশাই দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য সহায়তা প্রসঙ্গে উল্লেখ করেন, ‘প্রতি বছরই বাংলাদেশে উত্পাদিত ৫ বিলিয়ন ডলারের পণ্য যুক্তরাষ্ট্র কিনছে। ঢাকাস্থ ইউএসএইড মিশন প্রতি বছর ২০০ মিলিয়ন ডলার করে ব্যয় করছে বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রমে, জীবনমানের উন্নয়নে।’ ‘যেখানেই ধর্মীয় সন্ত্রাসবাদের ঘটনা ঘটছে সেখানেই আমরা অভিযান চালাচ্ছি যৌথ-উদ্যোগে। বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের মানুষের মানবাধিকার সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রেও আমরা সাহসিকতার সঙ্গে কাজ করে চলেছি’— উল্লেখ করেন নিশা দেশাই। তিনি বলেন, আমেরিকা সব সময় বাংলাদেশের মানুষের পাশে রয়েছে। অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের স্বাগত জানান রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন। এ সময় রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন এবং অসাম্প্রদায়িক-গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা এগিয়ে নিতে সরকার বদ্ধপরিকর। এ ক্ষেত্রে সন্ত্রাসবাদকে কোনোভাবেই বরদাস্ত করা হচ্ছে না। বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে যারা বিরোধিতা করেছে, সেই পরাজিতদের দোসররা রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের আড়ালে সামাজিক অস্থিরতা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালায় এবং কখনো কখনো তারা সহিংসতায় লিপ্তও হয়েছে। কিন্তু আপামর জনতার অকুণ্ঠ সমর্থনে বর্তমান সরকার জনজীবনের নিরাপত্তা বিধানে দৃঢ়সংকল্পবদ্ধ। রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন, বিচারহীনতার সংস্কৃতির যে অপবাদ ছিল, তা ঘুচিয়ে শেখ হাসিনার সরকার আইনের শাসনের ক্ষেত্রে অনেক দূর এগিয়েছে। একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার চলছে অত্যন্ত ন্যায়নিষ্ঠভাবে। রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের কাঙ্ক্ষিত সমৃদ্ধিশালী বাংলাদেশ রচনায় জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গোটা বাংলাদেশ আজ ঐক্যবদ্ধ।’ ‘একাত্তরের ঘাতকদের চলমান বিচারে আন্তর্জাতিক সমর্থন ক্রমান্বয়ে বাড়ছে এবং আশা করছি যুক্তরাষ্ট্র আরও জোরদারভাবে সমর্থন জুগিয়ে যাবে’, বলেন রাষ্ট্রদূত। নিশা দেশাই বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের অবাধে মতপ্রকাশ ও কথা বলার অধিকারকে আমরা সমর্থন করব। সবার ধর্মচর্চা অবাধে যাতে চলে, তা আমরা চাই। শান্তিপূর্ণভাবে সভা-সমাবেশ, সৎ ও স্বচ্ছ নির্বাচন দেখতে চাই আমরা। কারণ গণতন্ত্র অটুট থাকে সর্বস্তরের মানুষের অবাধ বিচরণের মধ্যেই।’ রাষ্ট্রদূত জিয়াউদ্দিন বিশেষভাবে উল্লেখ করেন, সর্বস্তরে নারীর সমঅধিকারের সুযোগ সৃষ্টির জন্য প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে কাজ করতে অত্যন্ত আগ্রহী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ছাড়াও হোয়াইট হাউসের প্রতিনিধি, মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি, সুশীলসমাজ, সিনিয়র সাংবাদিক, সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা এবং প্রবাসের বিশিষ্টজনেরাও অংশগ্রহণ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ