• শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৩৫ পূর্বাহ্ন |

বৈশাখী সাজ

বৈশাখলাইফস্টাইল ডেস্ক: আসি আসি করে দরজায় কড়া নাড়ছে বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। আর এই বৈশাখকে স্বাগত জানাতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে আমাদের তরুণ তরুণীরা। নিচ্ছে হাজারো প্রস্তুতি। আর তাদের সাজগোজে পোশাকে প্রাধান্য পাচ্ছে লাল-সাদা। আর এজন্য শপিংমল থেকে শুরু করে মাঠে-ঘাটে সব জায়গায় রয়েছে কেনাকাটার ভিড়। আর কেনাকাটাতো করতেই হবে কারণ সামনেই যে পহেলা বৈশাখ বা নববর্ষ। এ আর এ সময়টাতেই পান্তা ইলিশ, লাল-সাদা শাড়ি ও পাঞ্জাবিতে নিজেকে নতুন করে ফিরে পায় সবাই।

আর বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসবে নতুন রঙবেরঙের শাড়িতেই নয় নয়ন ভোলানো সাজেও দেখা যায় আমাদের নারীদের। সকাল বেলায়ই শুরু হয় পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান। তাই এসময় হালকা ও ন্যাচারালভাবে সাজলে দেখতে সুন্দর লাগবে। কারণ দিনে বেশি সাজ লাগে না।

মেকআপ :

এটি সাজের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন একটি অংশ। মেকআপ করার আগের দিন রাতে অবশ্যই ফেসিয়াল করে নিতে হবে। কারণ তা না হলে ত্বকে মেকআপ বসবে না। তবে যদি সেটা করা না যায়, তাহলে মাইল্ড ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ভালোভাবে মুছে নিতে হবে। সব ধরনের ত্বকে মেকআপ লাগানো যায়। তবে এক্ষেত্রে জরুরি হলো মেকআপ বেল্গন্ডিং। তারপর টোনার দিয়ে ত্বক টোন করে নিতে হবে।

এবার মুখে ময়েশ্চারাইজার লাগান। এর ৫ মিনিট পর সানস্ক্রিন বা ফাউন্ডেশন লাগান। তারপর কিছুক্ষন অপেক্ষার পর ট্রান্সলুশান পাউডার অথবা পিঙ্ক শেডের ফেস পাউডার পাফ করুন। একটু অপেক্ষার পর লাগালে মেকআপটা ত্বকে ভালোভাবে বসবে। এ সময় মুখে একটু বেশি পাউডার লাগান। তারপ সামান্য পানি স্প্রে করুণ। এবার পাউডার ত্বকের সঙ্গে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন তাতে দেখতে সুন্দর লাগবে।

তখন মেকআপ বেশি মনে হবে না। তাছাড়া যদি পানি স্প্রে করে নেন তাহলে সারাদিন ঘাম হওয়ার ভয় থাকে না। এরপর চিকবোন হাইলাইট করুন বল্গাসন দিয়ে। বল্গাসন যেন হালকা হয় সেটা খেয়াল রাখতে হবে। তাতে আপনার ত্বকের রঙের সঙ্গে মিলে যাবে বা কাছাকাছি হবে। ফর্সা মেয়েদের গাঢ় রঙের বল্গাশন যেমন লাল, মেরুন গোলাপী বল্গাশন লাগাতে হবে। আর যাদের গায়ের রঙ চাপা তারা বাদামি রঙের বল্গাশন লাগাতে পারেন।

চোখের সাজ :

পহেলা বৈশাখে চোখের সাজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এটি অপনার চেহারারটাকে আলাদা একটা লুক দেয়। ড্রেস বা শাড়ির রঙের সঙ্গে মিলিয়ে শ্যাডো দিতে পারেন চোখে। চোখকে আকর্ষণীয় করেতে চোখের মাঝখানের অংশে একটু হালকা কালার দিন। আর কোনার অংশে দিন ডার্ক আর ওপরের অংশে দিন সফট গোল্ড আইশ্যাডো। তবে এসময় অবশ্যই চোখের আকৃতির দিকেও খেয়াল রাখতে হবে। এতে চোখ আকর্ষণীয় লাগে। শ্যাডো চোখের পুরো অংশে ভালোভাবে বেন্ড হয়ে গেলে তারপর আইলাইনার দিবেন। তারপর দিবেন মাশকারা। আর বেশি ন্যাচারাল লুক চাইলে আইশ্যাডো ছাড়াই ব্রাউন কাজল দিয়ে আউটলাইন করতে পারেন। চোখের নিচের পাতায় দিন কাজল।

ঠোঁটের সাজ :

নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে হলে ঠোঁটের সাজও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে লিপস্টিক ব্যবহার করতে পারেন। বৈশাখের পোশাকে বেশিরভাগই লালের প্রাধান্য থাকে। তাই আপনিও পরতে পারেন লাল লিপস্টিক। ঠোঁটের আকৃতি অনুযায়ী লিপলাইনার দিয়ে প্রথমে ঠোট এঁকে নিন। তারপর লিপস্টিক লাগান। আর যদি ক্যাজুয়াল লুক আনতে চান, তাহলে বেছে ন্যাচারাল কালার।

চুলের সাজ :

চুলের সাজও গুরুত্বপূর্ণ। যদি চুল স্ট্রেট হয় তাহলে চুল খোলা রাখতে পারেন। তবে সারাদিনের জন্য বের হলে খোঁপা করে নেওয়াই ভালো। চাইলে একসাইডে স্টাইল করে বেণিও করতে পারেন। তবে এদিনে চুলের স্টাইলের জন্য ফুল ছাড়া চুল ভাবাই যায় না। খোঁপা হোক বা বিনুনিই হোক না কেন ফুল চাই-ই। যাদের চুল লম্বা তারা বেণি করতে পারেন। আর যাদের ছোট চুল তারা টার্সেল দিয়ে লম্বা বেণি করে সঙ্গে কাঁচা গোলাপ, গাঁদা, গাজরা, বেলি কিংবা জুঁই ফুলের মালা লাগাতে পারেন।

টিপ :

টিপটা কেন বাকি থাকবে। যেহেতু বৈশাখ তাই গোল টিপের পাশাপাশি তুলি দিয়ে একে নিতে পারেন হালকা ডিজাইনের মানানসই টিপ।

যত ফ্যাশনই থাকুক না কেন বৈশাখে বাঙালিরা নিজেদের সৌন্দর্য প্রকাশ করে ঘরোয়া সাজে। ফুটিয়ে তুলে নিজেদের ঐতিহ্য।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ