• বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৩০ অপরাহ্ন |

দিনাজপুরে অনেক নদী এখন আবাদী জমি!

Pic22মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর : দিনাজপুরে অনেক নদী এখন আবাদী জমিতে পরিণত হয়েছে। এসব নদীর বুবে ধান, ভুট্টাসহ বিভিন্ন ফসলের আবাদ হচ্ছে। এক সময়ের প্রবাহমান ঢেপা নদীসহ কয়েকটি নদীর বুকে চলছে ধান, ভুট্টা, মরিচসহ বিভিন্ন ফসলের চাষাবাদ।
অপরদিকে নদী ভরাট করে চলছে দখল বানিজ্য। চলছে অবৈধ দখলের মহোৎসব উত্তোলন করা হচ্ছে বালু। নদীকে বাঁচিয়ে রাখতে নেই কোন পরিকল্পনা। শুকনো মৌসুমের আগেই নদী শুকিয়ে যাওয়ার ফলে হারিয়ে গেছে অধিকাংশ প্রজাতির মাছ ও জলজ প্রাণী।
দিনাজপুরে ঐতিয্যবাহী পর্যটন কেন্দ্র কান্তনগর মন্দিরের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া ঢেপা নদীর বুকে এখন ধান আর ভুট্টার আবাদ হচ্ছে। নদী শুকিয়ে ধু ধু বালু চর, সে চরের কোথাও হাটু পানি আর কোথাও কোন পানি নেই আছে শুধু গর্ত।  যেন বালু বুকে নিয়ে নদী পানির জন্য আর্তনাদ করছে। তবে শুধু ৫ ফুটের একটি সরু খাল রয়েছে। যা  দেখে  বোঝা যায়- সেখানে একটি নদী ছিল।
অথচ অতীতে এ নদীকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছিল ব্যবসা বানিজ্যের কেন্দ্র। এই নদী দিয়ে এক সময় চলতো বড় বড় পাল তোলা নৌকা আর মালামালবাহী বজরা। আজ আর নেই সেই অবস্থা।
নদীর উজান থেকে পলি আসায় নদীগুলো ভরাট হয়ে গেছে। অনেক নদী হারিয়েছে গতিপথ অথবা অস্থিত্ব। অনেক স্থানে নদী টিকে আছে নামেই। এতে এ অঞ্চলের পরিবেশ মারাত্বক বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। দখল আর ভরাটে নদীগুলোর পানি ধারন ক্ষমতা কমে যাওয়ায় বর্ষাকালে দেখা দেয় বন্যা।
খোদ দিনাজপুর জেলা শহরের উপর দিয়ে প্রবাহিত পূনর্ভবা নদী এখন মরা খালে পরিণত হয়েছে। এ নদীতে শুষ্ক মৌসুমে কোথাও কোথাও পানি থাকলেও বেশীর ভাগ স্থানে শুধু ধু ধু বালুচর। অনেক স্থানে স্থানীয় ভূমিহীনরা নদীতে ধান আবাদ করেছে। শহরের কাঞ্চন ব্রীজের নিকট স্থানীয়রা পূনর্ভবা নদীতে ধান আবাদ করেছে। বর্ষা মৌসুমে অতিরিক্ত বৃষ্টি হলে নদী ভরে শহরের নি¤œাঞ্চন প্লাবিত হয়ে পড়ে।
জেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে ছোট-বড় ১৯টি নদী। এগুলো হচ্ছে পূনর্ভবা, আত্রাই, করতোয়া, কাঁকড়া, ঢেপা, গর্ভেশ্বরী, ছোট যমুনা, ইছামতি, ভূল্লী, পাথরঘাটা, নর্ত, ছোট ঢেপা, বেলান, নলসীশা, তুলসীগংগা, চিরি, মহিলা,  তেতুলিয়া (তুলাই), ভেলামতি। এসব নদীর মোট দৈর্ঘ্য ছিল ৭২৪ কি.মি। এছাড়া জেলার ১৩ উপজেলায় ছোট-বড় বিল রয়েছে ৭৫টি।
ঘোড়াঘাট উপজেলার ‘মহিলা নদীর’ দু’পাশে বোরো ধানের বীজ তলা তৈরী ও ইরি বোরো আবাদের উপযোগী করতে এ এলাকার কিছু অসাধু ব্যক্তি নদী ভরাটের উৎসবে মেতে উঠেছেন। মহিলা নদী হচ্ছে করতোয়া নদীর শাখা নদী।  চিরিরবন্দরের রাণীরবন্দর এলাকার এক সাংবাদিক জানান, অচিরে এসব নদী খনন না করা হলে কৃষকের সেচের কাঙ্খিত সুফল মিলবেনা।
এক সময়ের খরস্রোতা পুনর্ভবা নদী এখন মরাখাল। কাহারোল উপজেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত এ নদী প্রয়োজনীয় সংস্কার ও ড্রেজিংয়ের অভাবে করুন অবস্থা। আবার দখল হয়ে নদীর দু’পাড়ে অবাধে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়ি ঘর নির্মাণ করেছে স্থানীয়রা।
সুকুমার নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, আজ থেকে ২৫ বৎসর আগেও জেলা শহর থেকে ব্যবসায়ীরা নদী পথে নৌকা নিয়ে কাহারোল হাটে ব্যবসা করার জন্য আসতেন। কিন্তু এখন নদীর বুকে শুধু বালু চর। চিরিরবন্দরের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া এক সময়ের স্রোতস্বিনী প্রমত্তা ইছামতি নদী এখন যেন মরা খাল। দেখলে মনে হবে নদী আর ফসলের মাঠ যেন একাকার হয়ে গেছে।
দিনাজপুর সদরের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, চলতি শুস্ক মৌসুমে জেলার ছোট-বড় সকল নদীর চরে সহস্রাধিক চাষী ৯০৬ হেক্টর জমিতে ব্রি-২৮, ব্রি-৩২ জাতের বোরো ধান, তরমুজ, আলু, মরিচ, সবজীসহ বিভিন্ন ফসলের আবাদ করেছে।  ভূমিহীন কৃষকেরা সুযোগ পেলেই এসব নদীর চরে চাষাবাদ করে।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সিদ্দিকুজ্জামান নয়ন জানান, ড্রেজিং না করায় ঢেপা নদীসহ কয়েকটি নদীর প্রস্থ ও গভীরতা কমে প্রায় সমতল হয়ে গেছে। বর্ষা মৌসুমে পলি ও বালু পড়ে নদীগুলো ভরাট হয়ে মরা নদীতে পরিনত হয়। নদীতে জেগে উঠা চরে চলছে চাষাবাদ। নদীর প্রবাহ ঠিক রাখতে কয়েকটি নদীর ড্রেজিং করার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে।
কৃষি মৌসুমে উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধিনে পুনর্ভবা নদীর গৌরীপুর এলাকায় একটি রেগুলেটর কাম ব্যারেজ নির্মান প্রকল্পের প্রস্তাবও পাঠানো হয়েছে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে। নদী দখল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নদী শাসন করার কাজ পানি উন্নয়ন বোর্ডের। কিন্তু নদীর ভূমির দায়িত্ব ভূমি অফিসের। তিনি বলেন, ২০১৪ সালে পার্বতীপুরের খড়খড়িয়া নদীতে রেগুলেটর স্থাপন করে কৃষকরা এখন ভাল উপকার পাচ্ছে।
দিনাজপুর জেলার ওপর দিয়ে প্রবাহিত নদ-নদী ড্রেজিং করে বাঁধ ও জলকপাট নির্মাণ করে পানির সঠিক ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়ে কৃষিক্ষেত্রে সেচ-সুবিধা অব্যাহত রাখা সম্ভব। কয়েকবছর আগে আত্রাই নদীর চিরিরবন্দর ও দিনাজপুর সদরের অংশে কৃষিকাজের সেচের জন্য ৩টি রাবার ড্যাম স্থাপন করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ