• রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০১:১১ অপরাহ্ন |

টাকা ছাড়া কিছুই বোঝে না শিক্ষা কর্মকর্তা

ঘুষলালমনিরহাট প্রতিনিধি : লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হাসান আতিকুর রহমানের বিরুদ্ধে ঘুষ বানিজ্যসহ নানা দুর্নীর্তির অভিযোগ উঠেছে। টাকা ছাড়া কিছুই বোঝে না সে। টাকা ছাড়া কোন কাজ করে না সে। এছাড়া  ওই কর্মকর্তার মাধ্যমে সাধারণ শিক্ষক নানা ভাবে হয়রানি হচ্ছে। কোন কাজের জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা এমনকি দিনের পর দিন তার অফিসে গিয়ে কাজ হচ্ছে না। এমনকি তার পছন্দের শিকদের অফিসের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। কেউ কোন কাজের জন্য আসলে তাদের ওইসব শিক্ষকদের সাথে যোগাযোগ করতে বলা হচ্ছে। শুধু তাই নয় এই শিক্ষা কর্মকর্তা শিক্ষক বদলীর নিয়ম নিতির তোয়াক্কা না করে মোটা অঙ্কেও টাকার বিনিময় শিক্ষদের সুবিধা অনুযায়ী বদলী করছে।
গত ১১/০৪/২০১৬ তারিখে শিক্ষক আঃ রশিদ হাতীবান্ধা উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভাপতির বরারাবরে শিক্ষা কর্মকর্তা হাসান আতিকুর রহমানের ঘুষের বিষয়ে একটি লিখিত নিকট অভিযোগ করেন। এছাড়া তিনি বিভিন্ন দপ্তরে এর অনুলিপি প্রদান করেন।
প্রাপ্ত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, সদ্য অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আ:রশিদ পেনশন বিলের কাগজপত্র নিয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার হাসান আতিকুর রহমানের নিকট গেলে তিনি ওই শিক্ষকের নিকট ১০হাজার টাকার ঘুষ দাবী করেন। তিনি আরো বলেন,দাবীকৃত টাকা দিলে বিলে সই করা হবে, তা না হলে সই হবে না। ১১লাখ ১৭ হাজার টাকা পাবেন আর আমাকে ১০ হাজার দিবেন না, তা হতে পারে না। তার দাবীকৃত টাকা না দেয়ায় আজ অবধি ফাইলটিতে স্বাক্ষর হয়নি।
এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হাসান আতিকুর রহমান জানান, আমার উপর আনীত অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। যে আমার উপর অভিযোগ করেছে সে নিজেই একজন দূর্নীতিবাজ তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আমার কাছে আছে। আমি একজন ধনী পরিবারের সন্তান। আমার টাকার অভাব নেই। আমি অন্যের টাকা নিব কেন ? আমার অফিসের স্টাপের সমস্যা থাকতে পারে। তারা কোথায় কি করে। কার কাছে টাকা নেয় তা আমি জানি না। তারা খুব প্রভাবশালী। তারা বিভিন্ন সময়ে আমার কথা বলে টাকা নেয় আমি শুনেছি । তাই আমি খুব বিপদে আছি। এছাড়া আমি কোন বদলী করি নাই শিক্ষা কমিটির সভাপতি সব বদলী করছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ