• শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০২:২৯ অপরাহ্ন |

রেলওয়েতে শূন্যপদ ১২ হাজার ৮৫৯টি

বাংলাদেশ রেলওয়েসিসি নিউজ: রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক জানিয়েছেন, বর্তমানে রেলওয়ের বিভিন্ন পদে ১২ হাজার ৮৫৯টি পদ শূন্য রয়েছে। রোববার বিকেলে জাতীয় সংসদে দশম অধিবেশনের প্রথম কার্য দিবসে হবিগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

সংসদে মন্ত্রীর দেওয়া তথ্যানুযায়ী, প্রথম শ্রেণিতে ৫৪৮টি পদের মধ্যে ৪২০ জন বর্তমানে কর্মরত আছে। প্রথম শ্রেণিতে শূন্যপদ ১২৮টি। দ্বিতীয় শ্রেণির ১ হাজার ৩৫৬টি পদের মধ্যে ৮২৩টিতে কর্মরত রয়েছে, এখানে ৫৩৩টি পদ শূন্য রয়েছে।

আর তৃতীয় শ্রেণির ২১ হাজার ৮৭৬টি পদের মধ্যে ১৪ হাজার ৪৪৬টি পদে কর্মরত আছেন। তৃতীয় শ্রেণির ৭ হাজার ৪৩০ টি পদ শূন্য রয়েছে। এছাড়া চতুর্থ শ্রেণির ১৬ হাজার ৪৮৪টি পদের মধ্যে ১১ হাজার ৭১৬টিতে কর্মরত রয়েছে, এখানে শূন্য রয়েছে ৪ হাজার ৭৬৮টি পদ।

রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক জানান, ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত নিয়মিতভাবে শূন্য পদে নিয়োগ কার্যক্রম বন্ধ ছিলো। সরকারি নির্দেশে ১৯৯২ সালে ১০ হাজার ৯৩ জন দক্ষ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ‘গোল্ডেন শেইক’-এর আওতায় স্বেচ্ছায় অবসর দেওয়ায় এবং স্বাভাবিক নিয়মে অবসর গ্রহণ করায় সর্বস্তরে জনবলের সঙ্কট সৃষ্টি হয়। ফলে তখন থেকেই ট্রেনের দৈনন্দিন অপারেশনাল কার্যক্রম বিঘ্নিত হচ্ছে এবং বেশ কিছু রেল স্টেশন বন্ধ রয়েছে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের মেয়াদে অর্থাৎ ২০১০ সাল থেকে ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ১৪ হাজার ৮২টি শূন্য পদ পূরণে মন্ত্রণালয় থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। এরমধ্যে ৯ হাজার ৫৪২টি শূন্য পদে নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ২০০৬ সালে সহকারী স্টেশন মাস্টারের ৮১টি পদের ছাড়পত্র দেওয়া হয়। এরমধ্যে ১৪ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। অবশিষ্ট ৬৭ জনের নিয়োগ কার্যক্রম মামলাজনিত কারণে পরবর্তী সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষায় রয়েছে।

তিনি বলেন, ২০১০ সালে সহকারী স্টেশন মাস্টারের ৯১টি পদে ছাড়পত্র দেওয়া হলেও মামলাজনিত কারণে নিয়োগ কার্যক্রম বর্তমানে স্থগিত আছে। ২০১২ সালে সহকারী স্টেশন মাস্টারের ৩২টি পদে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। তারমধ্যে ২৫জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

রেলমন্ত্রী আরও বলেন, আর ২০১৫ সালে সহকারী স্টেশন মাস্টারের ২৭০টি পদের ছাড়পত্র দেওয়ার পর নিয়োগ প্রক্রিয়া চলছে। আগামী ২৫ এপ্রিল মৌখিক পরীক্ষার আহ্বান করা হয়েছে। এসব পদে নিয়োগ সম্পন্ন হলে তাদের উপযুক্ত ট্রেনিং দিয়ে বন্ধ স্টেশনগুলোকে পর্যায়ক্রমে চালু করা সম্ভব হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ