CC News

কুড়িগ্রামে পিইসিই পরীক্ষা দিতে পারলো না ৩ শিক্ষার্থী

 
 

কুড়িগ্রাম, ১৮ নভেম্বর।। কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে প্রধান শিক্ষকের গাফলতির কারণে প্রবেশপত্র না আসায় চলতি পিইসিই পরীক্ষা দিতে পারলো না তিন শিক্ষার্থী। ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার চন্দ্রখানা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষার্থীরা হলো- উপজেলার কুমারপাড়া গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে রিয়াজুল ইসলাম পলাশ, একই গ্রামের গনেশ চন্দ্রের মেয়ে শিমু এবং রতন চন্দ্রের মেয়ে পল্লবী ক্লাস।

তারা তিন জনই নিয়মিত শিক্ষার্থী। রবিবার ফুলবাড়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় (পাইলট) কেন্দ্রে তাদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার কথা ছিল। কিন্তু শনিবার তাদের অভিভাবকরা জানতে পারেন যে, তাদের সন্তানদের প্রবেশপত্র আসেনি। সারা বছর পড়াশোনা করে প্রস্তুতি নিলেও শেষ মুহুর্তে পরীক্ষায় অংশ নিতে না পারায় সন্তানদের ভবিষ্যত নিয়ে শংকিত হয়ে পড়েছেন অভিভাবকরা।

পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষার্থী রিয়াজুল ইসলাম পলাশের মা পলি বেগম বলেন, পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আমার ছেলে ফরম পূরণ করেছে। পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানে স্কুল থেকে তাকে একটি হার্ডবোর্ডও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পরীক্ষার আগের দিন জানতে পারলাম তার প্রবেশপত্র আসেনি। এটা প্রধান শিক্ষকের অবহেলার কারণে হয়েছে। আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।

তবে অবহেলার কথা অস্বীকার করে প্রধান শিক্ষক আফরোজা বেগম প্রিয়া বলেন, শিক্ষার প্রতিষ্ঠানটি থেকে ২৭ জন শিক্ষার্থী চলতি পিইসিই পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। ওই ৩ শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা তাদের নাম পাঠাতে নিষেধ করায় তাদের নাম পাঠানো হয়নি। ফলে তাদের প্রবেশপত্র আসেনি।

সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার রাশেদুল হক মন্ডল জানান, প্রধান শিক্ষকের গাফলতির কারণে শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে না পারলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email