দেশকে এগিয়ে নিতে অনেক পরিকল্পনা রয়েছে : শেখ হাসিনা

 
 

সিসি ডেস্ক, ২৪ ডিসেম্বর।। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ১০ বছর ক্ষমতায় থাকায় দেশব্যাপী ব্যাপক উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে তার সরকার।  ভবিষ্যতে দেশকে এগিয়ে নিতে তার আরও অনেক পরিকল্পনা রয়েছে।

কামরাঙ্গীরচরে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত নির্বাচনী জনসভায় তিনি বলেন, চলমান উন্নয়ন কর্মসূচি এবং পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে আবারও আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনা জরুরি। বিএনপি সন্ত্রাস আর দুর্নীতি ছাড়া মানুষের জন্য কিছুই করতে পারে না উল্লেখ করে তিনি আবার ক্ষমতায় এলে নগরীর বস্তিবাসীর জন্য ১০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণের ঘোষণা দেন।

প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) সকাল থেকেই শহরতলীর কামরাঙ্গীরচর ৩১ শয্যা হাসপাতাল ময়দানে ভিড়। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত এ নির্বাচনী সভায় যোগ দেন ঢাকার দক্ষিণের ৮টি আসনের আওয়ামী লীগ এবং মহাজোটের মনোনীত প্রার্থীরা।

বেলা সাড়ে ১১টায় এ জনসভায় যোগ দেন আওয়ামী লীগ প্রধান। কামরাঙ্গীচরবাসীর পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানান এ এলাকার নেতা খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।আওয়ামী লীগ ও মহাজোট প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি নৌকার পক্ষে ভোট চান।

নির্বাচনী এ সভায় প্রধানমন্ত্রী ৭৫ পরবর্তী সরকারগুলোর দুঃশাসনের সমালোচনা করেন, তুলে ধরেন তার সরকারের আমলে এ এলাকায় বাস্তবায়িত উন্নয়নের ফিরিস্তি। বলেন, জনগণের জন্য রাজনীতি করে না বলেই বিএনপি জামায়াতের আমলে উপেক্ষিত হয়েছে নাগরিক অধিকার।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা শুধু নিজেদের ভাগ্য গড়েছে। দুর্নীতি, জঙ্গিবাদ সৃষ্টি, মানি লন্ডারিং, মানুষ হত্যা, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী হত্যাসহ তারা আরও নানা রকম অপরাধ করেছে।শেখ হাসিনা বলেন, টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকার কারণেই দেশের মানুষের আজ ভাগ্য পরিবর্তন সম্ভব হয়েছে। অগ্রগতির যে নতুন ধারা সূচিত হয়েছে তা ধরে রাখতে পুনরায় আওয়ামী লীগ এবং মহাজোট প্রার্থীকে জয়ী করার আহ্বান জানান তিনি।

এসময় তিনি বস্তিবাসীদের নানা সমস্যার কথা উল্লেখ করে বলেন, বস্তিবাসীদের জীবনজীবিকার ব্যয় না বেড়ে ভবিষ্যতে ফ্ল্যাটে থাকতে পারেন সেজন্য তাদের কথা খেয়াল রেখে আবার ক্ষমতায় এলে তিনি দশ হাজার নতুন ফ্ল্যাট তৈরি করবেন।

এছাড়াও আবার ক্ষমতায় এলে যোগযোগ দ্রুততর করতে ঢাকাকে ঘিরে রিং রোড, ঢাকার ৫ নদী খনন, পাতাল রেলসহ বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দেন সরকারপ্রধান শেখ হাসিনা।

Print Friendly, PDF & Email

 
 
 
 
 
 
 
 

error: Content is protected !!