সংস্কৃতিজগতে ছিলাম, আছি ও থাকব- নূর

 
 

সিসি ডেস্ক, ৮ জানুয়ারি ।। ‘মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তৃণমূল পর্যায়ে সংস্কৃতিচর্চা ছড়িয়ে দেওয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন। বিগত পাঁচ বছরে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ দায়িত্ব সাধ্যমতো পালনের চেষ্টা করেছি। প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই এ বিরল সুযোগ করে দেওয়ার জন্য। আমি শিল্পের জগতের মানুষ। এ জগতে আমি ছিলাম, আছি ও থাকব।’

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে সোমবার সন্ধ্যায় মন্ত্রণালয় আয়োজিত বিদায় অনুষ্ঠানে আসাদুজ্জামান নূর এসব কথা বলেন। সুখী-সমৃদ্ধ দেশ গঠনে সংস্কৃতিচর্চার বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, সংস্কৃতি ক্ষেত্রে অবকাঠামো সুবিধা আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো এসব সুযোগ-সুবিধা সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারছে কি না এবং এসব অবকাঠামো ব্যবহারের পর্যাপ্ত মানুষ তৈরি হচ্ছে কি না। বিদায়ী মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সে কাজটিই করছি। মঞ্চের সামনের মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধিতে আমরা কাজ করছি। কেননা, সবাই শিল্পী হবে না। সংস্কৃতিমনস্ক ও শিল্পরসিক মানুষ যত বাড়বে, ততই দেশের জন্য মঙ্গল।’ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত নতুন প্রতিমন্ত্রী এ কাজটি আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবেন বলে এ সময় আশাবাদ ব্যক্ত করেন আসাদুজ্জামান নূর।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবের রুটিন দায়িত্বে নিয়োজিত অতিরিক্ত সচিব রোকসানা মালেক ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) আলতাফ হোসেন, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবিবুল্লাহ সিরাজী, গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আশীষ কুমার সরকার, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক রিয়াজ আহম্মদসহ সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় ও অধীনস্থ দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

নতুন মন্ত্রিসভায় এবার ময়মনসিংহ-৫ (মুক্তাগাছা) আসনের কে এম খালিদ সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন।

প্রথম আলো

Print Friendly, PDF & Email