শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে রংপুরকে হারাল ঢাকা

 
 

খেলাধুলা ডেস্ক, ১১ জানুয়ারী।। তুমুল উত্তেজনার আঁচ ছিল আগে থেকেই। ঢাকা ডায়নামাইটস-রংপুর রাইডার্সের হাইভোল্টেজ ম্যাচে মাঠের লড়াইয়েও সেটা পাওয়া গেল শতভাগ। বিপিএলের রোমাঞ্চকর এই ম্যাচটিতে অভিষিক্ত আলিস আল ইসলামের হ্যাটট্রিকে ঢাকা পেয়েছে ২ রানের নাটকীয় জয়।

উত্তেজনার কমতি ছিল না। শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে দর্শকের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো। মাঠে যাওয়া দর্শকদের নিরাশ করেনি ঢাকা-রংপুর। ব্যাট-বলের লড়াইটা হয়েছে তাদের সমানে সমান। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৮৩ রান করা ঢাকা একেবারে শেষ বলে নিশ্চিত করেছে ২ রানের জয়। একসময় জয়ের পাল্লা ভারি থাকা রংপুর শেষ দিকে এলোমেলো হয়ে যাওয়ায় ২০ ওভারে ৯ উইকেটে করতে পারে ১৮১ রান।

শুক্রবার মিরপুরে শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ঢাকার টানা তৃতীয় জয়। অবশ্য আগের দুই ম্যাচেও শতভাগ সাফল্য পেয়েছিল তারা। আগে দুই ম্যাচ খেলে দুটিতেই জিতেছিল তারা। নিজেদের প্রথম ম্যাচে রাজশাহী কিংসকে ৮৩ রানে ও দ্বিতীয় ম্যাচে খুলনা টাইটানসকে ১০৫ রানে হারিয়েছে ঢাকা। এদিন বড় সংগ্রহ গড়েও জিততে পারেনি সাকিব আল হাসানের দলটি।

বড় লক্ষ্য সামনে রেখে রংপুর ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৫ রানে দুই উইকেট হারিয়ে বসে। পরে তৃতীয় উইকেট প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান রাইলি রুশো দারুণ একটি ইনিংস খেলে দলকে জয়ের দুয়ারে পাৌঁছে দেন। তিনি ৪৪ বলে ৮৩ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন। তাঁকে দারুণ সাপোর্ট দেন মোহাম্মদ মিঠুন। তিনি ৩৫ বলে ৪৯ রান করে ম্যাচে বিপর্যয় নেমে আসে। রংপুরের ব্যাটিংয়ে চরম বিপর্যয় নেমে আসে, এ অবস্থা থেকে আর কেউ টেনে তুলতে পারেনি।

তবে রংপুর ব্যাটসম্যানদের বড় হুমকি হয়ে দাঁড়ান তরুণ অ্যালিস ইসলাম। ব্যক্তিগত তৃতীয় এবং ইনিংসের ১৭তম ওভারে হ্যাটট্রিক করে ম্যাচে পুরো চিত্র পাল্টে দেন। চার ওভার বল করে ২৬ রান দিয়ে চার উইকেট পান তিনি। তাই দলও দারুণ জয় পায়।

হাইভোল্টেজ এই ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ঢাকা গড়ে ১৮৩ রান। ক্যারিবীয় তারকা পোলার্ডের ব্যাটিং ঝড়েই এই বিশাল সংগ্রহ গড়ে ঢাকা। মাত্র ২৬ বলে ৬২ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন তিনি, যাতে পাঁচটি চার ও চারটি ছক্কার মার রয়েছে। দারুণ একটি ইনিংস খেলেন অধিনায়ক সাকিবও, ৩৭ বলে ৩৬ রান করেন তিনি।

এর আগে শুরুতে মাত্র ৮ বলে ১৮ রান করে রনি তালুকদার ভালো কিছু করার আভাস দিয়েও শেষ পর্যন্ত ইনিংসটাকে বড় করতে পারেননি। তবে আন্দ্রে রাসেল শেষ দিকে ১৩ বলে ২৩ রান করে দলের ইনিংসটাকে বড় করতে অন্যতম ভূমিকা রাখেন।

সোহাগ গাজী, শফিউল ইসলাম ও বেনি হাওয়েল দুটি করে এবং অধিনায়ক মাশরাফি ও ফরহাদ রেজা একটি করে উইকেট নিয়ে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের ভিতে কিছুটা নাড়া দিয়েছিলেন। যদিও শেষ পর্যন্ত ঢাকা বড় সংগ্রহই গড়েছে।

গতবারের চ্যাম্পিয়ন রংপুরের আগে তিন ম্যাচ খেলে দুটিতে জয় ও একটিতে হেরেছে। এ নিয়ে টানা তিন ম্যাচ জিতে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠে যায় ঢাকা ডায়নামাইটস।

Print Friendly, PDF & Email

 
 
 
 
 
 
 
 

error: Content is protected !!