রেলকে মানুষের আকাঙ্খা পূরণের বাহন হিসেবে গড়ে তোলা হবে- রেলপথ মন্ত্রী

 
 

সিসি নিউজ, ২২ জানুয়ারী।। রেলপথ মন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, রেলের জায়গা রেলকে ফেরত দিয়ে সহযোগিতা করুন। এখন মানুষের সামর্থ্য হয়েছে তাই আর বিনা টিকেটে রেলে ভ্রমন করবেন না। আমরা রেলকে পর্যায়ক্রমে মানুষের আকাঙ্খা পূরণের বাহন হিসেবে গড়ে তোলা হবে।
আজ মঙ্গলবার দুপুরে নীলফামারীর সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা পরিদর্শনে গিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।
রেলপথ মন্ত্রী বলেন, রেলওয়ে সাধারণ মানুষের বাহন। সাশ্রয়ী, নির্ভরযোগ্য ও আরামদায়ক ভ্রমনে বিশ্বের প্রতিটি দেশের সাধারণ মানুুষের আস্থা অর্জন করেছেন রেলওয়ে। রেলওয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রতিযোগিতামূলক বাহন হিসেবে বিশ্বের সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আমাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে রেলওয়ে বিরাট ভূমিকা পালন করছে। আর রেলওয়ে বড় সম্পদ সৈয়দপুর রেলওয়ে কানখানা। সেই বৃটিশ আমলে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এখানে ওয়াগন, কোচ সব রেলওয়ের যাবতীয় কাজের সক্ষমতা রয়েছে।
তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৮ সালে ক্ষমতায় এসে প্রথম রেলওয়ের জন্য পৃথক রেলপথ মন্ত্রণালয় গঠন করেন। তিনি বর্তমানে যেভাবে সুচারুভাবে দেশ পরিচালনা করছেন, তেমনিভাবে রেলওয়ের উন্নয়নেও বিশেষ নজর দিয়েছেন। রেলওয়েকে মৃত প্রতিষ্ঠান থেকে বর্তমান ভাল অবস্থায় নিয়ে এসেছেন। তারপরও বর্তমানে রেলওয়ে পরিবহনে অনেক ঘাটতি রয়েছে। দ্রুততম সময়ে চাহিদা অনুযায়ী লোকবল নিয়োগ দিয়ে রেলওয়ের সক্ষমতা আরো বাড়ানো হবে। স্টেশন মাষ্টারের সংকটের বন্ধ থাকা প্রায় ১০০টি স্টেশন অচিরেই চালু করা হবে। এত করে দেশের সাধারণ মানুষ রেলওয়েকে ব্যবহার করতে পারবেন।
মন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার পর আমাদের দেশ অনেক দূর এগিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ১৯৭৫ সালে স্বপরিবারে হত্যার পর তার সব পরিকল্পনা ধূলিসাৎ করে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে যারাই ক্ষমতায় এসেছেন তাদের সামনে দেশকে নিয়ে কোন দিকনিদেশনা ছিলনা। দেশের জনগণের কল্যানে তাদের ছিলনা কোন স্বপ্নও। তাদের মূলতঃ একটিই লক্ষ্য ছিল ক্ষমতা আঁকড়ে রাখা।
সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা পরিদর্শনকালে অন্যান্যদের মধ্যে নীলফামারী – ৪ আসনের সাংসদ আহসান আদেলুর রহমান আদেল, রেলওয়ের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (রোলিং স্টক) মো. সামসুজ্জমান, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক খোন্দকার সহিদুল ইসলাম, পশ্চিমাঞ্চল (রাজশাহী) প্রধান সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রক মো. বেলাল হোসেন সরকার, নীলফামারী জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন, নীলফামারী পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ সুপার সিদ্দিকী তাঞ্জিলুর রহমান, নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন, সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আখতার হোসেন বাদলসহ রেলওয়ে উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে মন্ত্রী কারখানার অভ্যন্তরে “অদম্য স্বাধীনতা” স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে শহীদদের শ্রদ্ধা জানান । পরে তিনি রেলওয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

Print Friendly, PDF & Email