জাজিরা প্রান্তে দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতু

 
 

সিসি ডেস্ক, ২৩ জানুয়ারী।। দেশের সবচেয়ে বড় প্রকল্প ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে বসানো হলো আরো একটি স্প্যান। এর ফলে এই সেতুর ১ হাজার ৫০ মিটার দৃশ্যমান হলো।

সেতু বিভাগের প্রকৌশলী মো. হুমায়ুন কবীর জানান, বুধবার সকাল ১০টায় পদ্মাসেতুর ৩৬ ও ৩৭ নম্বর পিয়ারের ওপর ধূসর রঙের স্প্যানটি বসিয়ে দেয়ার কাজ শুরু হয়। এটি হলো সেতুর জাজিরা প্রান্তের ষষ্ঠ স্প্যান এবং সার্বিকভাবে বসানো সপ্তম স্প্যান।

এর আগে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর একটি স্প্যান বসানো হয়। পদ্মা সেতুতে মোট ৪১টি স্প্যান বসানো হবে।

মাওয়ার কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে সপ্তম স্প্যানটি প্রস্তুত করে রাখা হয়েছিল। মঙ্গলবার কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে আনা হয় এটি। বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে স্প্যানটি ৩৬ ও ৩৭ নম্বর পিলারের ওপর বসানোর কাজ শুরু হয়। পরে সকাল ১০টার পরে স্প্যানটি বসানো সম্পূর্ণ হয়। শরীয়তপুরের জাজিরার নাওডোবা প্রান্তের তীরের দিকে এটিই শেষ স্প্যান।

পদ্মা সেতু প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটি তিন হাজার ৬০০ টন ধারণক্ষমতার ক্রেন ‘তিয়ান ই’ দিয়ে মাওয়া থেকে জাজিরা প্রান্তে আনা হয়।

জাজিরা প্রান্তের ষষ্ঠ স্প্যানটি আরো আগেই বসানোর কথা ছিল। কিন্তু কুমারভোগের ওয়ার্কশপ থেকে প্রায় তিন হাজার টন ওজনের স্প্যানটি নিয়ে বিশাল আকারের ভাসমান ক্রেইনের জাজিরা যাওয়ার মতো পানি নদীতে ছিল না।

এদিকে সামনে বর্ষা মৌসুম থাকায় মাওয়া প্রান্ত আবারো খরস্রোতা হয়ে উঠবে। তখন সেখানে পিলার বসানোও কঠিন হয়ে যাবে। এ কারণে বর্ষা আসার আগেই মাওয়া প্রান্তের সব পিলারের জন্য পাইলিংয়ের কাজ শেষ করে ফেলতে চাইছে কর্তৃপক্ষ।

এর আগে গত রবিবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সেতু ভবনে কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠককালে বলেন, সার্বিকভাবে পদ্মা সেতুর ৬৩ শতাংশ কাজ এবং মূল সেতুর ৭৩ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

তিনি বলেন, পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের মূল সেতুর অগ্রগতি শতকরা ৭৩ ভাগ, নদীশাসন কাজের অগ্রগতি শতকরা ৫০ ভাগ ও মোট ২৬১ টি পাইলের মধ্যে ১৯১টি পাইলের কাজ সম্পাদিত এবং আরো ১৫টি পাইলের আংশিক কাজ শেষ হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মোট পিলার ৪২টি, এরমধ্যে ১৬টির কাজ পুরোপুরি সম্পন্ন হয়েছে। ১৫টি পিলারের কাজ চলমান রয়েছে। মোট স্প্যান ৪১টি, ইতোমধ্যে ছয়টি স্প্যান স্থাপন করা হয়েছে। ফলে এখন ৯০০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে। এছাড়া ১৭টি স্প্যান প্রস্তুত রয়েছে। আরো ১৮টি স্প্যানের প্রস্তুতি কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email