• রবিবার, ২২ মে ২০২২, ১১:২৭ পূর্বাহ্ন |

সৈয়দপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু

সিসি নিউজ, ৯ এপ্রিল।। দেশের চতুর্থ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবে সৈয়দপুর বিমানবন্দরের জন্য জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে ফিল্ড বুক তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। সোমবার বিকেলে নীলফামারী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সৈয়দপুর বিমানবন্দরের আশপাশ এলাকায় এই কার্যক্রম শুরু হয়।

নীলফামারীর সৈয়দপুর ও দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার ৯১২ একর জমির আওতায় অধিগ্রহণ করা হবে। এরমধ‌্যে নীলফামারী অংশে ৫৯৬ একর এবং দিনাজপুর অংশে ৩১৬ একর জমি রয়েছে। নীলফামারীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শাহীনুর আলম, সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম গোলাম কিবরিয়া, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার ফিল্ড বুক তৈরিতে অংশ নেন। সৈয়দপুর উপজেলার লক্ষ্মণপুরের পশ্চিমপাড়ায় ফিল্ড বুক তৈরিতে কাজ করছিলেন কর্মকর্তারা। এসব বিষয় নিয়ে তাঁরা এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলছিলেন।

সৈয়দপুর বিমানবন্দর সূত্রে জানা যায়, বিমানবন্দরের আশপাশ এলাকায় ৯১২ একর জমি অধিগ্রহণের আওতায় আসবে। এর মধ্যে সৈয়দপুর উপজেলায় ৫৩৫ একর ব্যক্তিমালিকানাধীন জমি, সরকারি জমি ৬০ একর, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩৯ একর, সড়ক ও জনপথ বিভাগের ৬ একর, সৈয়দপুর সেনানিবাসের প্রায় ১৪ একর ও খাসজমি ১৩ একর। এ ছাড়া পার্শ্ববর্তী দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের ৩১৭ একর ব্যক্তিমালিকানাধীন জমি অধিগ্রহণের আওতায় পড়েছে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার বলেন, ৯১২ একর জমির মধ্যে কী কী অবকাঠামো রয়েছে এবং এর স্বরূপ সম্পর্কে ধারণা নিতে ফিল্ড বুক তৈরি হচ্ছে। এতে স্থানীয় জনগণ ও বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের যৌথ স্বাক্ষর থাকবে।

কথা হয় সৈয়দপুরের ইউএনও এস এম গোলাম কিবরিয়ার সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৈয়দপুর বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক করার ঘোষণা দেন। সেই ধারাবাহিকতায় মাঠপর্যায়ে আমরা কাজ শুরু করেছি।’

সৈয়দপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বাস্তবায়ণ কমিটির আহবায়ক মোখছেদুল মোমিন জানান, এ অঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবি বাস্তবায়ণে আমরা সকলেই একযোগে কাজ করছি।

বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মহিবুল হক এ প্রসঙ্গে বলেন, আগে বাজার মূল্যের দ্বিগুন দেয়া হতো, এখন সরকার তিনগুণ দিচ্ছে। যদি কোন পূর্ণবাসন করতে হয় সেটি সরকার করবে। উন্নয়ণের জন্য কিছু জমি দিতে হবে, কিছু সেক্রিফাইজ করতে হবে। জমি ছাড়া তো কোনো উন্নয়ণ হবে না।

এ বিষয়ে নীলফামারী-৪ আসনের সাংসদ আহসান আদেলুর রহমান বলেন, সরকারের দেয়া তিনগুন মৌজা রেট অনেকের হয়তো প্রতুল মনে হচ্ছে না। কিন্তু আমি খোঁজখবর নিয়ে দেখলাম আশেপাশে বেশ কিছু জমি আছে যা ওই টাকা দিয়ে জমি কিনতে পারবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উন্নয়ণে কিছু লোকের আত্মত্যাগের প্রয়োজন। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করবো জনগনের আত্মত্যাগ ওইরকম ত্যাগে যেন পরিনত না হয়। আমরা তাদের সে সকল প্রয়োজন মেটানোর চেষ্টা করবো।

উল্লেখ‌্য যে, নানা জটিলতায় বন্ধ হয়েছিল সৈয়দপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের জমি অধিগ্রহণের কাজ। সৈয়দপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে বিমানবন্দর বাস্তবায়ণ কমিটির আহবানে রোববার শহরে দুই ঘন্টা ব‌্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ