‘ফণি’র আঘাতে সারাদেশে নিহত ১৬

 
 

সিসি ডেস্ক, ৪ মে ।। ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’র আঘাতে সারাদেশে ১৬ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া আহত হয়েছেন অনেকেই। বিভিন্ন জেলায় ঘরবাড়ি, ফসল ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

শুক্রবার সকালে ভারতের উড়িষ্যায় ‘ফণি’ আঘাত হানে। এরপর শনিবার সকালে ঝড়টি বাংলাদেশে আঘাত হেনেছে। ‘ফণি’ র প্রভাবে নোয়াখালী, ভোলা, লক্ষীপুর, পটুইয়াখালী, বাগেরহাট, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ও বরগুনা জেলায় অন্তত ১৬ জন নিহত হয়েছেন।

পটুয়াখালী

পটুয়াখালীর কুয়াকাটার তীব্র বাতাসে গাছের ডাল ভেঙে শুক্রবার আহত মোটরসাইকেল চালক হাবিবুর রহমান মুসুল্লি (২৫) শুক্রবার (৩ মে) রাতে বরিশাল সেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তানভীর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বরগুনা

বরগুনার পাথর ঘাটার উপকূলীয় এলাকায় শুক্রবার (৩ মে) রাতে ঝড়ে গাছ চাপা পড়ে দুজন নিহত হয়েছেন। বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার রাম চন্দ্র দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছন।

বাগেরহাট

বা‌গেরহা‌টের রণ‌জিৎপু‌রে দমকা হাওয়ায় গা‌ছের ডাল ভে‌ঙে প‌ড়ে এক গৃহবধূ মারা গেছেন। তার নাম শাহারুন বেগন (৫০)। শুক্রবার (৩ মে) দুপুরে বা‌ড়ি‌তে ধা‌নের কাজ করার সময় এ ঘটনা ঘটে।

খানপুর ইউপি চেয়ারম্যান ফকির ফহম উদ্দীন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কিশোরগঞ্জ

কিশোরগঞ্জের মিঠামইন, ইটনা ও পাকুন্দিয়ায় বজ্রাঘাতে ও ঝড়ে শিশুসহ ছয়জন মারা গেছেন।

নিহতরা হলেন, সুমন মিয়া (৭), মো. মহিউদ্দিন (২২), রুবেল দাস (২৬), আসাদ মিয়া (৪৫), নুরুন্নাহার এবং মজিবুর রহমান (১৭)। পাকুন্দিয়া থানার ওসি মোহাম্মদ ইলিয়াস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নোয়াখালী

নোয়াখালীর সূবর্ণচরে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র প্রভাবে শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এসময় চর ওয়াপদা ইউনিয়নের চর আমিনুল হক গ্রামে ঘরের মধ্যে চাপা পড়ে দুই বছরের এক শিশু নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৩০ জন।

সুবর্ণচর উপজেলার কন্ট্রোলরুমে দায়িত্ব পালনরত উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইকবাল হাসান জানান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নে আম কুড়াতে গিয়ে ঝুমুর (১২) নামে ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিশু মারা গেছে। জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভোলা

ভোলা সদরে শনিবার (৪ মে) সকালে দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নে ঘর ভেঙে চাপা পড়ে রানী বেগম (৪৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছেন। ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

লক্ষ্মীপুর

ফণীর আঘাতে লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার চর আলগী গ্রামে আনোয়ারা বেগম (৭০) নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন। শনিবার (৪ মে) সকালে ঝড়ে নিজ ঘরের কাঠ গায়ের ওপর পড়লে তিনি মারা যান। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রফিকুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে বজ্রাঘাতে আপেল মিয়া (২০) নামে এক কৃষক নিহত হন। শুক্রবার (৩ মে) সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার বগডহর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নবীনগর থানার ওসি রণজিত রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

নেত্রকোনা

নেত্রকোনার মদন উপজেলার হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রাঘাতে আবদুল বারেক (৩৫) নামে এক কৃষক মারা গেছেন। মদন থানার ওসি মো. রমিজুল হক এ তহ্য নিশ্চিত করেন।

Print Friendly, PDF & Email

 
 
 
 
 
 
 
 

error: Content is protected !!