• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:২৯ অপরাহ্ন |

নির্বাচনে কারচুপি: ইউএনওসহ ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বগুড়া, ৫ মে ।। গত ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে মামলা করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বগুড়ার প্রথম যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ এবং ইলেকশন ট্রাইব্যুনালে এ মামলা করেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত পরাজিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী খালেদা বেগম।

মামলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মোছা. শারমিন আখতার, নবনির্বাচিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শ্রাবণী আকতার বানু, প্রিসাইডিং অফিসারসহ ২০ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।

অভিযোগে বলা হয়, নির্বাচনে বাদী খালেদা বেগম মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পদ্ম ফুল প্রতীকে ১৪ হাজার ২৫৫ ভোট পান। আর বিজয়ী প্রার্থী শ্রাবণী আকতার বানু হাঁস প্রতীকে পান ২৪ হাজার ৮০০ ভোট। প্রিসাইডিং অফিসারদের গণনা মতে ঘোষিত ফলাফল সম্পূর্ণ বেআইনি, ভ্রমাত্মক, স্বেচ্ছাচারী, অন্যায় ও পক্ষপাতমূলক। পক্ষপাতমূলক ও ভুল গণনা মতে প্রদত্ত ফলাফল কখনই বহাল থাকতে পারে না। প্রকৃত ও সঠিক নিয়মে ভোটগ্রহণ ও গণনা হলে বিজয়ী প্রার্থীর চেয়ে এক হাজার ৩৯২ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচিত হবেন বাদী।

যোগাযোগ করা হলে খালেদা বেগম বলেন, ভোট পুনর্গণনা ও ন্যায়বিচার হলে তিনিই বিজয়ী হবেন।

ইউএনও শারমিন আখতার বলেন, ‘এখানে কোনো ভোট কারচুপির ঘটনা ঘটেনি। অত্যন্ত সুষ্ঠু, সুন্দরভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। তাঁরা হঠাৎ মামলা করেছেন। ভোটের দিনও তাঁরা আমাদের কাছে ভোট কারচুপির বিষয়ে অভিযোগ করেন নাই। আমরা সুষ্ঠু, সুন্দরভাবে ভোট সম্পন্ন করে ফলাফল দিয়েছি।’


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ