বাংলাদেশকে ৩১৬ রানের টার্গেট দিলো পাকিস্তান

 
 

খেলাধুলা ডেস্ক ।। সেমিফাইনাল স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে আগেই। শেষটা তাই জয় দিয়ে রাঙিয়ে দেশে ফেরার লক্ষ্য বাংলাদেশের। সেই লক্ষ্যে কঠিন পথ পেরোতে হবে টাইগারদের। শুক্রবার লর্ডসে পাকিস্তান নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে করেছে ৩১৫ রান। জয়ের জন্য বাংলাদেশকে করতে হবে ৩১৬ রান।

চলছে মোস্তাফিজুর রহমানের উইকেট উৎসব। এবার বোলিংয়ের সঙ্গে ক্যাচ নেয়ার প্রতিভাও দেখালেন এই পেসার। নিজের বলে নিজেই দেখার মতো ক্যাচ নিয়ে তিনি ফিরিয়েছেন শাদাব খানকে।

শাদাবের ব্যাট ছুঁয়ে নিচু হয়ে আসার বল বাঁ হাতে ধরেন মোস্তাফিজ। তার চমৎকার ক্যাচে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানকে ফিরতে হয়েছে মাত্র ১ রান করে।

দ্রুত ৩ উইকেট হারানোর পর মাঠে নেমেছিলেন সরফরাজ আহমেদ। অধিনায়ক হিসেবে দলকে টেনে তোলার লক্ষ্যই ছিল তার। কিন্তু হলো না, রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যেতে হয়েছে তাকে! ইমাদ ওয়াসিমের হাঁকানো বল নন-স্ট্রাইক প্রান্তে থাকা সরফরাজের ডান হাতে জোরে আঘাত করে। মাঠে চিকিৎসা নিয়ে খানিক সময় থাকলেও শেষ পর্যন্ত পারেননি। ফিরে যাওয়া সময় তিনি ব্যাট করছিলেন ২ রান নিয়ে।

সেঞ্চুরিয়ান ইমাম-উল-হককে আউট ‍করার পর হারিস সোহেলকে ফিরিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। এরই সঙ্গে ওয়ানডেতে ১০০ উইকেট পূরণ করেছেন তিনি।

ইমামকে ‍ফিরিয়ে পান ৯৯তম উইকেট। মাইলফলকে পৌঁছাতে বেশি সময় নিলেন না মোস্তাফিজ। পরের ওভারেই হারিসকে তুলে নিয়ে ৫২ ইনিংসে পূরণ করেন উইকেটের ‘সেঞ্চুরি’। লর্ডসের ম্যাচে নেমেছিলেন তিনি ৯৮ উইকেট নিয়ে।

দ্রুত ২ উইকেট হারানো পাকিস্তানকে টেনে তোলার দায়িত্ব ছিল হারিসের কাঁধে। আগের ম্যাচগুলোতে দারুণ পারফর্ম করায় তার কাছে প্রত্যাশাও ছিল বেশি। কিন্তু পারলেন না। উল্টো আউট হয়ে চাপ আরও বাড়িয়ে গেছেন। মোস্তাফিজের বলে ডিপ এক্সট্রা কভারে সৌম্য সরকারের হাতে পড়ার আগে করেন মাত্র ৬ রান।

বাবর আজম না পারলেও ইমাম-উল-হক সুযোগ নষ্ট করেননি। সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন এই ওপেনার। যদিও শতক পূরণের ১ বল পরই হিট উইকেট হয়ে ফিরতে হয়েছে তাকে। পাকিস্তানের ওই ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার আগেই প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন আরেক সেট ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হাফিজ।

দুই ওভারে দুই উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচে ফিরেছে বাংলাদেশ। আগের ওভারে মোস্তাফিজুর রহমানের বলে হিট উইকেট হয়ে ফিরেছেন সেঞ্চুরি করা ইমাম। পরের ওভারে মেহেদী হাসান মিরাজের বলে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন হাফিজ। সাকিব আল হাসানের হাতে ধরা পড়ার আগে অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান ২৫ বলে করেন ২৭ রান।

তার আগে সেঞ্চুরি ‍পূরণ করেন ইমাম। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি করার পর অবশ্য টিকতে পারেননি। মোস্তাফিজের বলে পিছিয়ে শট খেলতে গেলে তার পায়ের আঘাতে ভেঙে যায় স্টাম্প। ১০০ বলে ৭ বাউন্ডারিতে ইমাম করেন ১০০ রান।

উদ্বোধনী জুটি বেশিদূর যেতে না দিলেও পাকিস্তানের দ্বিতীয় উইকেট জুটি খুব ভোগাচ্ছিল বাংলাদেশকে। অবশেষে সেই জুটি ভাঙলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। এই পেসারের আঘাতে সেঞ্চুরি মিস করলেন বাবর আজম।

৯৬ রানে ‍আউট হয়ে গেছেন বাবর। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৪ রান দূরে থাকতে এলবিডাব্লিউয়ের শিকার হয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাকে। রিভিউ নিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি। ৯৮ বলে ১১ বাউন্ডারিতে ৯৬ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান। তার আউটে ভাঙে ইমাম-উল-হকের সঙ্গে ১৫৭ রানের জুটি।

ফখর জামানকে ফিরিয়ে পাকিস্তানের উদ্বোধনী জুটি ভেঙেছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। অষ্টম ওভারের দ্বিতীয় বলে এই ওপেনারকে পয়েন্টে মেহেদী হাসান মিরাজের ক্যাচ বানান বাংলাদেশি বোলার। ৩১ বলে ১ চারে ১৩ রান করেন ফখর। ইমাম-উল-হকের সঙ্গে তার জুটি ছিল ২৩ রানের।

ম্যাচটা নিয়মরক্ষকার হলেও বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ম্যাচ বলে কথা। জয়ের তৃপ্তি নিয়ে দেশে ফিরতে চান মাশরাফি মুর্তজারা। শুক্রবার লর্ডসের এই ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ। সেমিফাইনালের ‘অসম্ভব’ লক্ষ্য বাঁচিয়ে রাখতে ব্যাটিং নেওয়ার বিকল্প ছিল না পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের কাছে।

একাদশে দুটি পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে খেলা সাব্বির রহমান ও রুবেল হোসেন বাদ পড়েছেন, দলে ঢুকেছেন মাহমুদউল্লাহ ও মেহেদী হাসান মিরাজ। চোট নিয়ে শঙ্কা থাকলেও জায়গা ধরে রেখেছেন মুশফিকুর রহিম।

বাংলাদেশ একাদশ: মাশরাফি মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান।

পাকিস্তান একাদশ: সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), ইমাম-উল-হক, ফখর জামান, বাবর আজম, মোহাম্মদ হাফিজ, হারিস সোহেল, ইমাদ ওয়াসিম, শাদাব খান, মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজ, শাহীন শাহ আফ্রিদি।

Print Friendly, PDF & Email