সৈয়দপুরে নারী শ্রমিককে ধর্ষণের চেষ্টায় থানায় মামলা

 
 

সিসি নিউজ, ১৫ জুলাই ॥ নীলফামারী সৈয়দপুরে উত্তরা ইপিজেডের এক নারী শ্রমিককে ধর্ষণের চেষ্টায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। আজ সোমবার ইপিজেডের ওই নারী শ্রমিক নিজে বাদী হয়ে মো. আল- আমিন (৩১) নামের এক রিকশাভ্যান চালককে আসামী করে সৈয়দপুর থানায় ওই মামলা দায়ের করেন। সৈয়দপুর উপজেলার ৪ নম্বর বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের উত্তর বোতলাগাড়ী শ্বাষকান্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন কালীমন্দির এলাকায় গত ১০ জুলাই রাতের ওই ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়।
মামলা আরজি সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৪ নম্বর বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের শ্বাষকান্দর উত্তর ডাঙ্গাপাড়ার মো. বেলাল হোসেন ওরফে মোজাম্মেলের মেয়ে (১৮)। সে নীলফামারীর সংগলশীতে অবস্থিত উত্তরা ইপিজেডের একটি ফ্যাক্টরীর নারী শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। ঘটনার দিন গত ১০ জুলাই রাতে ডিউটি শেষে সে একটি রিকশাভ্যানযোগে প্রতিদিনের মতো নিজ বাড়িতে ফিরছিল। এ সময় ওই রিকশাভ্যানে ইপিজেড ওই নারী শ্রমিক একাই ছিলেন। রাত আনুমানিক সাড়ে ৯ টার দিকে তাঁকে বহনকারী রিকশাভ্যানটি সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের উত্তর বোতলাগাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কালীমন্দির সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছে। এ সময় রিকশাভান চালক মো. আল আমিন রিকশাযাত্রী ইপিজেড নারী শ্রমিককে একাই পেয়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় ধর্ষণের চেষ্টাকারী রিকশাভ্যান চালক ওই নারী শ্রমিকের পরণের কাপড়চোপড় ছিঁড়ে ফেলেন। এ সময় নারী শ্রমিক চিৎকার করলে রিকশাভ‌্যান চালক আল আমিন তাকে ফেলে রিকশাভ্যান নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় ওই নারী শ্রমিক নিজে বাদী হয়ে আজ সোমবার রিকশাভ্যান চালক আল আমিনকে আসামীকে করে সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। রিকশাভ্যান চালক আল আমিনের বাড়ি একই ইউনিয়নের বালাপাড়ায় এবং তার বাবার নাম মো. আফজাল হোসেন।
ওই নারী শ্রমিকের ১৬১ ধারায় জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়েছে। মামলার পর থেকে ধর্ষণের চেষ্টাকারী রিকশাভ্যান চালক আল-আমিন গা ঢাকা দিয়েছে বলে জানা গেছে।
সৈয়দপুর থানার অফিসার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবু হাসনাত খান ইপিজেডের এক নারী শ্রমিককে ধর্ষণ চেষ্টায় থানায় মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

Print Friendly, PDF & Email