• সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১০:৪৮ অপরাহ্ন |

সৈয়দপুরে মানব বর্জ্য ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত

Red Chilli Saidpur

সিসি নিউজ, ৬ আগষ্ট ।। নীলফামারীর সৈয়দপুরে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এসকেএস ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শহরের দুইটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানব বর্জ্য ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওয়াটার এইড বাংলাদেশ এর অর্থায়নে এসকেএস বাস্তবায়িত ওয়াশ ৪ আরবান পুওর প্রকল্পের আওতায় ওই ক্যাম্পেইনের আয়োজন করা হয়। শহরের ঐতিহ্যবাহী ও প্রাচীনতম সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে এবং সৈয়দপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে গত রবিবার একযোগে ওই ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সৈয়দপুর পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. শাহিনুর ইসলাম মিঠু।
সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্ব ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এসকেএস বাস্তবায়িত ওয়াশ ৪ আরবান পুওর প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী মো. নজরুল ইসলাম তপাদার।
এতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান মো. জামাল উদ্দিন শাহ্, এসকেএস বাস্তবায়িত ওয়াশ ৪ আরবান পুওর প্রকল্পের ওয়াশ প্রমোটার মোছা. মর্জিনা আক্তার ও মো. জাহাঙ্গীর ইসলামসহ সংস্থার অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নীলফামারীর প্রথম শ্রেণীর সৈয়দপুর পৌরসভায় স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে ও স্বল্প খরচে খুব সহজে সর্বাধিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বাসা-বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্ক পিট টয়লেটের মল অপসারেণ জন্য দুইটি ভ্যাকুট্যাগ রয়েছে। এর মধ্যে একটি বড় এবং অপরটি ছোট আকারের। এ দুইটি ভ্যাকুট্যাগ যথাক্রমে তিন হাজার লিটার এবং এক হাজার লিটার ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন। কিন্তু এ ভ্যাকুট্যাগের বিষয়টি পৌরসভা এলাকায় বসবাসকারী বাসিন্দাদের অনেকের কাছে এখন অজানা। এ অবস্থায় পৌরবাসীকে বিষয়টি জানানোর জন্য এবং সচেতন করার উদেশ্যে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এসকেএস ফাউন্ডেশন বাস্তবায়িত ওয়াশ ৪ আরবান পুওর প্রকল্পের উদ্যোগ গ্রহন করা হয়। সংস্থাটির উদ্যোগে গত ২৩ জুলাই শহরের উল্লিখিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দুইটির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে একটি করে তথ্য সংগ্রহ ফরম সরবরাহ করা হয়। আর ওই তথ্য ফরম দিয়ে প্রতিষ্ঠান দুইটির ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে তাদের নিজ বাড়ি ও প্রতিবেশি বাড়ির ল্যাট্টিন বিষয়ক সার্বিক তথ্য সংগ্রহ করা হয়। এতে তথ্য সংগ্রহের বিষয়সমূহের উল্লেখযোগ্য হচ্ছে টয়লেটের ধরণ অর্থাৎ টয়লেটটি সেপটিক ট্যাঙ্ক নাকি পিট/ রিং স্লাব। টয়লেট থেকে কি প্রক্রিয়ায় মল অপসারণ করা হয়। কতদিন আগে টয়লেটের মল অপসারণ করা হয়েছে। আগামীতে কবে মল অপসারণের তারিখ রয়েছে প্রভূতি। আর শিক্ষার্থীরা নিজ বাড়ি ও প্রতিবেশি বাড়ির উল্লিখিত বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের পর বাড়ি প্রধান ফটকে সৈয়দপুর পৌরসভার একটি স্টিকার লাগিয়ে দেয়। ওই স্টিকারে সৈয়দপুর পৌরসভার সংশ্লিষ্ট কাজের নিয়োজিতদের দুইটি হটলাইন নম্বর রয়েছে। এর পর গত রবিবার প্রতিষ্ঠান দুইটিতে আয়োজিত ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থী কর্তৃক পূরণকৃত তথ্য ফরমগুলো জমা গ্রহন করা হয়। এতে প্রায় ২ হাজার ৫শ’ পরিবারের তথ্য সংগৃহিত হয়েছে কলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য বন্ধ আছে।

আর্কাইভ