সৈয়দপুরে রাজকীয় বাগদান ও বিবাহ রেজিষ্ট্রেশনে অনুষ্ঠান

 
 

সিসি নিউজ, ১৫ আগষ্ট ।। নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরে রাজকীয়ভাবে অনুষ্ঠিত হলো একটি বাগদান ও বিবাহ রেজিস্ট্রেশন অনুষ্ঠান। গত বুধবার রাতে শহরের শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়কের সৈয়দপুর রেলওয়ে পুলিশ ক্লাবে ওই বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এর আগে আর কখনো এ শহরে এমন জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের আয়োজন চোখে পড়েনি সৈয়দপুরবাসীর।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শহরের শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়কের বিউটি সাইকেল স্টোরের স্বত্ত্বাধিকারী ও নতুন বাবুপাড়া শহীদ বি- জামান রোড়ের বাসিন্দা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মো. আলতাফ হোসেন। তাঁর ছেলে মো. আতিফ হোসেনের বিয়ে উপলক্ষে গত বুধবার (১৪ আগষ্ট) রাতে বর্ণাঢ্য বাগদান ও বিবাহ রেজিস্ট্রেশন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কনে শহরের নতুন বাবুপাড়া বিশিষ্ট ব্যবসায়ী পারভেজ আলমের কন্যা সামিহা তাসনিয়া (নিশাত)।
বাগদান ও বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয় সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ ক্লাবে। আর সেখানে গত সপ্তাহখানেক ধরে চলে সাজসজ্জার কাজ। অনুষ্ঠানস্থলটির সাজসজ্জায় ডেকোরেশন আনা হয় সুদূর রাজধানী ঢাকা থেকে। ডেকোরেশনের এ সব মালামাল কয়েকটি পিকআপ ও ট্রাকে করে ঢাকা থেকে বয়ে আনা হয় সৈয়দপুরে। বর্ণিল সাজে সজ্জিত হয় হয় গোটা রেলওয়ে পুলিশ ক্লাব। অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশের প্রধান ফটকে ডেকোরেটরের মাধ্যমে নির্মাণ করা হয় সুসজ্জিত বিশাল তোরণ। আরটিফিশিয়াল ফুলে ফুলে আচ্ছ্বাদিত করা হয় গোটা অনুষ্ঠানস্থল। লালগালিচায় অভ্যর্থনা জানিয়ে বরণ করে নেওয়া হয় আমন্ত্রিত অতিথিদের। আর অতিথিদের আপ্যায়ন করা হয় হরেক মেন্যুর খাবার দিয়ে। খাবার মেন্যুর মধ্যে ওপেন বুফেতে ছিল পুরি, শিক-কাবাব, চটপটি ,ফুস্কা, নানা প্রকার জুস, রসমালায়, চা-কপি কোলড্রিংস। ছিল পোলাও -মাংস, বিরানিসহ নানা রকম খাবার দাওয়ার। সহস্্রাধিক অতিথিকে অ্যাপায়ন করা হয় অনুষ্ঠানে। অতিথিদের বিনোদন ও মনে আনন্দ দিতে ছিল মনোজ্ঞ সংগীতানুষ্ঠানও। এ জন্য ছিল অত্যাধুনিক সাউন্ডসিস্টেম। আর পুরো অনুষ্ঠানস্থলে শীতাতপ নিয়ন্ত্রনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছিল। এ অনুষ্ঠানে সার্বিক নিরাপত্তা নিয়োজিত ছিল বেসরকারি নিরাপত্তাবাহিনীর বেশ কিছু সদস্য।
এমন জাঁকজমকপূর্ণ বিয়ে আয়োজন দেখে শহরবাসী অভিভূত হয়। অনুষ্ঠানস্থলে সামনে সড়ক দিয়ে চলাচলকারী পথচারী শহরের লোকজন আয়োজন দেখে থমকে দাঁড়ান। কিছু সময় দাঁড়িয়ে অপলক দৃষ্টিতে দেখেন দৃষ্টিনন্দন প্রধান ফটকসহ সার্বিক আয়োজন। এরপর খোঁজখবর নেন তারা করেছেন এমন রাজকীয় অনুষ্ঠানে আয়োজন। কার জন্য আয়োজন এ ধরনের বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের। এ বাগদান ও বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে এসেছিলেন শহরের বিশিষ্ট শিল্পপতি, ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ, সুধীজনসহ শহরে গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
শেষে বর মো. আতিফ হোসেন এবং কনে সামিহা তাসনিয়া (নিশাত) এর শুভ বিবাহ রেজিস্ট্রেশন করা হয়। বিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করেন সৈয়দপুর পৌরসভার এলাকার বিবাহ রেজিস্ট্রার (কাজী) মাওলানা মো. সাইদুল ইসলাম। বিয়েতে দেন মোহর করা হয় পাঁচ লাখ এক হাজার এক টাকা।
এ ধরনের রাজতীয় আয়োজন সম্পর্কে তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র পরিবহন শ্রমিক নেতা মো. আখতার হোসেন বাদল। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর বাণিজ্যিক শহর সৈয়দপুরে আর এ ধরনের বর্ণাঢ্য আয়োজন হয়নি। তিনি আয়োজনের সার্বিক বিষয়ে প্রসংশা করে বলেন, শুধু টাকা-পয়সা থাকলেই হয় না। এ রকম ব্যতিক্রমধর্মী বর্ণাঢ্য আয়োজনের জন্য বিভিন্ন দেশের বাস্তব অভিজ্ঞতা, নিজের রুচিরোধ এবং উদার ও বড় ধরনের মন মানসিকতাও থাকা চাই বটে।

Print Friendly, PDF & Email