বিরলে ঘোড়ার মাংস বিক্রির দায়ে ৩ জনের জেল

 
 

দিনাজপুর, ৩১ আগষ্ট ।। দিনাজপুরের বিরলে ঘোড়া জবাই করে মাংস বিক্রির দায়ে এক স্কুলশিক্ষকসহ তিন ব্যক্তিকে জেল-জরিমানা করেরেছ ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

দিনাজপুরের বিরল উপজেলার রানীপুকুর ইউনিয়নের কাজিপাড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের তিনজনকে এই জেল-জরিমানা প্রদান করেন।

দণ্ডিত ব্যক্তিরা হলেন, বিরল উপজেলার কাজীপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এবং ১০ নং রানীপুকুর ইউপির কাজিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম, একই গ্রামের আব্দুল গণির ছেলে আব্দুল কাইয়ুম এবং রায়হান।

বিরল থানার ওসি এটিএম গোলাম রসুল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, শুক্রবার দুপুরে রায়হানকে এবং সন্ধ্যায় অপর দুজনকে আটক করা হয়। পরে সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম রওশন কবীর পশু জবাই আইনে তাদের সাজা দেন। কাইউম আর শফিকুলকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং রায়হানকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক বছর কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

ওসি গোলাম রসুল জানান, শুক্রবার সকালে বিরলের কাজীপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শফিকুল ইসলাম ও একই গ্রামের আব্দুল গণির ছেলে আব্দুল কাইয়ুম একটি ঘোড়া জবাই করেন। এরপর নিজেরা ওই ঘোড়ার কিছু মাংস রেখে বাকি মাংস দুইশ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেন।

ঘটনাটি বিরল প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার ফেসবুকে দিলে তা ভাইরাল হয়ে যায়। ঘোড়া জবাইয়ের খবর ছড়িয়ে পড়লে গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ প্রথমে রায়হানকে আটক করে। পরে সন্ধ্যায় এ ঘটনার হোতা শফিকুল ইসলাম ও আব্দুল কাইয়ুমকেও আটক করতে সক্ষম হয়।

Print Friendly, PDF & Email