বন্ধুর ছুরিকাঘাতে বন্ধু নিহত: আটক ২

 
 

সিসি নিউজ, ৪ সেপ্টেম্বর।। বন্ধুর ছুরিকাঘাতে ঘটনাস্থলেই বন্ধু ঝাক্কি ইমরান (২৬) নিহত এবং স্থানীয় জনতা মো. সুমন (১৯) ও আকবর আলী (২০) নামে দু’জনকে আটক করে থানা পুলিশে সোর্পদ করেছে। এদের বাড়ি নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরে।

ঘটনাটি আজ (৪ঠা সেপ্টেম্বর) বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে উপজেলার ঈসবপুর ইউনিয়নের বাঙ্গালপাড়া গ্রামে । বাঙ্গালপাড়া গ্রামের আব্দুল হালিম (৫০), মাহফুজুর রহমান ও রাকিব জানান- ওই সময় ডাঙ্গিরবাজার থেকে ৩জন যুবক ঘটনাস্থলে ধানক্ষেতে ধস্তাধস্তি করতে থাকতে থাকে। এর একপর্যায়ে দু’জন যুবক দৌঁড়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যেতে থাকে। এতে স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হয়। এসময় স্থানীয় লোকজন তাদের ধাওয়া করে আটক করে থানা পুলিশে খবর দেয়।

পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মরদেহ উদ্ধার করে এবং আটককৃতদের থানায় নিয়ে আসে। নিহত ঝাক্কি ইমরান নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার হাওলাদারপাড়ার (সিরিজগাছ সংলগ্ন) ফল ব্যবসায়ী মো. টেনির ছেলে। আটককৃত মো. সুমন ওই উপজেলার নয়াবাজারের কালু বার্বুচির ছেলে এবং আকবর আলী হাতিখানা গ্রামের সৈয়দ আলীর ছেলে।

জানা গেছে, গত ৪ বছর পূর্বে বন্ধু ঝাক্কি ইমরান ভারতের বিএসএফের হাতে আটক করায় অপর বন্ধু সুমনকে। সুমন ভারতের মুর্শিদাবাদ জেলখানায় ৪ বছর জেল খেটে কয়েকদিন আগে দেশে ফিরে আসেন। দেশে ফিরে আসার পর সুমন ঝাক্কি ইমরানকে খুঁজতে থাকেন। ঘটনারদিন সকাল ১১টায় বন্ধু আকবরকে সাথে নিয়ে ঝাক্কি ইমরানকে নেশা খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে চিরিরবন্দর উপজেলার ঈসবপুর ইউনিয়নের বাঙ্গালপাড়া গ্রামের ওইস্থানে নিয়ে এসে  কোনকিছু বুঝে ওঠার পূর্বেই সব্জি কাটার চাকু দিয়ে উপুর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই বন্ধু ঝাক্কি ইমরান নিহত হয়।

সৈয়দপুর উপজেলার হাতিখানা গ্রামের ইমরানের শ্বশুড় মো. আজাদ জানায়, সে ঢাকায় সেলুনে কাজ করত। কয়েকদিন আগে সে বাড়িতে এসেছে। ইমরান ১ সন্তানের জনক।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আশরাফুল ইসলাম জানান, নিহত ঝাক্কি ইমরানের বাম চোয়ালে, গলার নিচে, বাম কানে এবং বুকের বামদিকে চাকুর আঘাতে চিহ্ন রয়েছে। মরদেহের ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Print Friendly, PDF & Email