সৈয়দপুরে আসামী গ্রেফতারের দাবিতে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

 
 

সিসি নিউজ, ৮ সেপ্টেম্বর।। নীলফামারীর সৈয়দপুরে বীরমুক্তিযোদ্ধা মোখলেছুর রহমানের ওপর হামলা ও হত্যা চেষ্টায় দায়েরকৃত মামলার আসামীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সৈয়দপুর উপজেলা কমান্ড ওই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে। শহরের শহীদ ডা. জিকরুল হক সড়কে শহীদ স্মৃতি অম্লান চত্বরে মানববন্ধন করা হয়।
বেলা ১১টায় মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হয়ে চলে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও সদস্য, শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশ নেয়।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ উপজেলা কমান্ড, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, প্রজন্ম ’৭১ সৈয়দপুর জেলা শাখা, মুক্তিযোদ্ধা রেলওয়ে থানা কমান্ড ও সন্তান কমান্ড, ’৭১ এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সৈয়দপুর উপজেলা শাখা এবং মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল স্কুলের ব্যানার নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয় তারা।
মানববন্ধন চলকালে সেখানে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সৈয়দপুর উপজেলা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. একরামুল হক ও মো. ইউনুছ আলী, ’৭১ এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সৈয়দপুর উপজেলা শাখার সভাপতি ম. আ. শামীম, মুক্তিযোদ্ধা রেলওয়ে থানা কমান্ডার মো. মোজাম্মেল হক, প্রজন্ম ’৭১ এর সদস্য সাংবাদিক এম আর আলম ঝন্টু ও হামলার শিকার বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মো. মোখলেছুর রহমান প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।
সমাবেশে বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মো. মোখলেছুর রহমানের ওপর হামলা ও হত্যার চেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের বেশ কয়েকদিন অতিবাহিত হয়েছে। অথচ সৈয়দপুর থানা পুলিশ ওই মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি আজ অবধি। আসামীরা শহরে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও তাদের গ্রেপ্তার করছেন না পুলিশ। আর এ মামলার আসামীরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের প্রতি তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন বক্তারা।
বক্তারা মুক্তিযোদ্ধার ওপর হামলাকারীরা আসামীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন। অন্যথায় আগামীতে ঢাকা গিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সামনে আত্মহুতির মতো কঠোর কর্মসূচি দেওয়ার হুঁশিয়ারী উচ্চারন করেন।
প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগ সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন শাখার ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল গত ২৮ আগস্ট অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিল অনুষ্ঠানে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে ভোট গ্রহণ কর াহয়। এরপর ভোট গণনার শেষ পর্যায়ে সভাপতি পদপ্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা মোখলেছুুর রহমানের ওপর আতর্কিত হামলার চালিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এতে তিনি ও তাঁর এক নাতি স্বপন আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মোখলেছুর রহমান নিজে বাদী হয়ে ১১জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাত আরো ২৫/৩০জনকে আসামী করে গত ২ সেপ্টেম্বর সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক চৌধুরী ও তাঁর দুই ছেলেকে আসামী করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email